নদী ভাঙন প্রতিরোধে জরুরি ব্যবস্থা নিতে আল্টিমেটাম

সারাবাংলা

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি:
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলায় নদী ভাঙন প্রতিরোধে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধের ঘোষণা দিয়েছেন গোয়ালন্দ উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. মোস্তফা মুন্সী। গত বুধবার বিকালে উপজেলার দৌলতদিয়া ও দেবগ্রাম ইউনিয়নের নদী ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে যান তিনি। পরিদর্শন শেষে দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটে উপস্থিত জনতা ও সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্যকালে এ ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দৌলতদিয়া ও দেবগ্রাম ইউনিয়ন নদী ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। ভাঙনে প্রতি বছর হাজারো মানুষের বাড়ি-ঘর বিলীন হয়ে যাচ্ছে নদীতে। অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে দৌলতদিয়া ও দেবগ্রাম ইউনিয়নের অবশিষ্ট জনপদ ও গ্রাম, দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরিঘাট, দৌলতদিয়া টার্মিনাল, বাজার ও স্কুলসহ অনেকগুলো প্রতিষ্ঠান। কিন্তু এতদিনেও ভাঙন প্রতিরোধে কোনো কার্যকর ব্যাবস্থা গ্রহণ করেনি পানি উন্নয়ন বোর্ড। গত কয়েক বছরের বর্ষায় ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনের ক্ষত কাটতে না কাটতেই আবারও ভাঙন শুরু হওয়ায় চরম আতঙ্কে রয়েছে পদ্মা পাড়ের মানুষগুলো।
প্রতিদিন শত শত মানুষ নদী ভাঙনের অভিযোগ নিয়ে আমার কাছে আসেন। আমি তাদের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। ভাঙন রোধে আমি তাদের জন্য কিছুই করতে পারছি না। তাই দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি সরকারি দলের একজন নেতা হয়েও আজকে বাধ্য হয়ে আমাকে আলটিমেটামের কথা বলতে হচ্ছে। তিনি বলেন, গত কয়েক মাসে আমি পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম সহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের রাজবাড়ীর নির্বাহী প্রকৌশলীর সঙ্গে বারবার কথা বলেছি।কিন্তু এখন পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কোনো কিছুই হলো না।
উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে সাত দিন সময় বেধে দিলাম। এই ৭ দিনে কতৃপক্ষ কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ব্যর্থ হলে আগামী ২ জুলাই (শুক্রবার) নদীভাঙন কবলিত হাজার হাজার মানুষ নিয়ে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করবো।
তিনি স্থানীয়দের উদ্দেশ্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। আমার বিশ্বাস তার কাছে নদীভাঙন কবলিত মানুষের অর্তনাদ পৌছালে তিনি

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *