সোমবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

নবাবগঞ্জে মাশরুম চাষে শাহিন মোল্লার সাফল্য

ডিসেম্বর ৩১, ২০২১

শামীম হোসেন সামন, নবাবগঞ্জ থেকে
যুগোপযোগী পরিবেশ ও আবহাওয়ার কারণে মাশরুম চাষে ঢাকার নবাবগঞ্জে বিপুল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ওষুধি গুণসম্পন্ন এ খাবারটির চাহিদাও বাড়ছে ব্যাপক হারে। অথচ এখনও চাহিদার চেয়ে উৎপাদন কম। উৎপাদন বাড়ানো গেলে অর্থনৈতিক সাফল্য নিশ্চিত। ফলে মাশরুম চাষে স্বাবলম্বী হচ্ছেন অনেকে। আগ্রহ আর অদম্য ইচ্ছা শক্তির জোরে মাশরুম চাষ শুরুর এক বছরের মধ্যেই তেমনই এক সফল চাষি ও উদ্যোক্তা হিসাবে নিজেকে গড়ে তুলেছেন ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার নয়নশ্রী ইউনিয়নের উত্তর বাহ্রা গ্রামে শাহিন মোল্লা। সাভার মাশরুম উন্নয়ন সেন্টার থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ২০২০ সালে শুরু করেন মাশরুম চাষ। শুরুতে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে বীজ ক্রয় করে মাশরুম চাষ করলেও বর্তমানে নিজেই বীজ তৈরি করে চাষের পাশাপাশি বিক্রি করা শুরু করেছেন তিনি। বর্তমানে মাশরুমের পাশাপাশি বীজেরও চাহিদা বেড়েছে। সরকারি সহায়তা পেলে মাশরুম চাষ করে বেকার সমস্যা দূর করার পাশাপাশি বিদেশে রফতানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব বলে মনে করেন এই উদ্যোক্তা। শাহিন মোল্লা জানান, খড়, কাঠের গুঁড়া, গমের ভুসি, তুস ও চুন দিয়ে আমরা নিজেরাই মাশরুমের বীজ তৈরি করি। পরে বীজের সঙ্গে জাতীয় মাশরুম উন্নয়ন সেন্টার থেকে আনা টিস্যু কালচার যুক্ত করে সঠিক পরিচর্যা ও দিনে ৩ বার জল স্প্রেরের মাধ্যমে ২০ দিনের মাথায় শুরু হয় ফলন। এ কাজে তেমন একটা পরিশ্রম নেই। প্রতিদিন ৩০ কেজির মতো অর্ডার আসে। খামার আরও বড় করতে পারলে এলাকার চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রফতানি করার আশা তার। আশা করছি ও সফল খামারি হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবো। মাশরুম চাষি শাহিন মোল্লা আরও জানান, বর্তমানে মাশরুম চাষ করে তিনি সব খরচ বাদ দিয়ে ভালো টাকা আয় করতে পারছেন। প্রথম স্পন থেকে ২৫ থেকে ৩৫ দিনের মধ্যে ফলন পাওয়া যায়। ২ কেজির একটি স্পন প্যাকেট থেকে একবার ফলনে ৩০০-৫০০ গ্রাম পর্যন্ত মাশরুম পাওয়া যায়। তিনি প্রতিদিন ২-৩ কেজি পর্যন্ত মাশরুম বিক্রি করে থাকেন। প্রতিকেজি মাশরুম বিক্রি হয় ২৫০-৩০০ টাকা দরে। অবিক্রিত মাশরুম ও নষ্ট করেন না তিনি, রোদে শুকিয়ে কেজি প্রতি ১২০০ টাকা দরে বিক্রি করেন দূরবর্তী উপজেলাগুলোতে। তিনি এই মাশরুম চাষ সম্প্রসারণের মাধ্যমে অন্যের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে চান বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। ভবিষ্যতে মাশরুমের বীজ গবেষণা ল্যাব স্থাপনের ইচ্ছা পোষণ করেন তিনি। নানা পুষ্টিগুণে ভরপুর মাশরুম মানবদেহের জন্য অত্যন্ত উপকারি। বর্তমানে প্রতিকেজি মাশরুম ২শ থেকে আড়াইশো টাকা এবং প্রতিকেজি পাউডার মাশরুম দুই হাজার টাকা দরে বিক্রি হয়। অল্প খরচে বেশি লাভ হওয়ায় শাহিন মোল্লার মতো দোহার-নবাবগঞ্জের অনেক বেকার যুবক ঝুঁকছে মাশরুম চাষে। নয়নশ্রী ইউনিয়নের উত্তর বাহ্রা গ্রামের আনোয়ার হোসেন বলেন, মাশরুম চাষ শুরুর দিকে অনেকেই ঝুঁকিপূর্ণ মনে করলেও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে মাশরুম চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়া সম্ভব। শাহিন মোল্লা মাশরুম চাষে এই এলাকার একটি দৃষ্টান্ত। তার মতো অনেকেই যদি মানুষ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠে তবেই বেকারত্ব দূর করা সম্ভব। শাহিনের উৎপাদিত মাশরুম দোহার ও নবাবগঞ্জের স্থানীয় চাইনিজ রেস্টুরেন্ট, সুপারসপ ও বিভিন্ন হোটেলে বিক্রি হচ্ছে। দিন দিন মাশরুম দিয়ে তৈরি মুখরোচক খাবারও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। নবাবগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকতা নাহিদুজ্জামান জানান, মাশরুম চাষ একটি লাভজনক পেশা। এর পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। নবাবগঞ্জ কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে মাশরুম চাষিদের মাঠ পর্যায়ে গিয়ে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া এই এলাকার কোনো যুবক মাশরুম চাষে আগ্রহী হলে তাকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। আমরা চাই নবাবগঞ্জে মাশরুম চাষের বিপ্লব ঘটুক।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
সর্বশেষ

আইভীর হ্যাটট্রিক জয়

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা প্রতিদিন অনলাইন|| নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে ফের নির্বাচিত হয়েছেন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। টানা

আমেরিকা বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের নতুন কমিটির শপথ

ডেস্ক রিপোর্ট : যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন আমেরিকা বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের (এবিপিসি) নবনির্বাচিত কমিটির শপথ গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। গত

১২ বছরের নিচের শিক্ষার্থীদের এখনই ভ্যাকসিন নয় : শিক্ষামন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট : ১২ বছরের নিচের শিক্ষার্থীদের এখনই ভ্যাকসিন নয়। এজন্য কঠোর মনিটরিং করা হচ্ছে। পরবর্তীতে পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31