নবীনগরে সংবাদ সম্মেলন

সারাবাংলা

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার জিনদপুর ইউনিয়নের নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন একই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দরা। গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার জিনদপুর ইউনিয়নের বাঙ্গরা বাজারের নিউওয়ে ওয়ালী আহাম্মদ চেয়ারম্যান প¬াজার সামনে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ দাবি জানান তারা। জিনদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবুল হোসেন রানার সভাপতিত্বে এসময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক হারুনূর রশিদ। তাছাড়া উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেনÑ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটি সদস্য আবুল হোসেন তনু, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সদস্য খুরশেদ আলম চৌধুরী,ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাছিম সরকার,ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ও বাঙ্গরা বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা মাজহারুল হক চঞ্চল,ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিল¬াল হোসেন,যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান,আওয়ামী লীগ নেতা ইউপি সদস্য আব্দুল কাদের চৌধুরী, নাজিম উদ্দিন, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী ও ইউপি সদস্য নার্গিস আক্তার,যুবলীগ নেতা সুমন খান,সহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের আরো বেশ কয়েকজন নেতৃবৃন্দ। এ ছাড়াও মুঠোফোনে এই সাংবাদিক সম্মেলনকে সমর্থন করেন বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির আরো বেশ কয়েকজন সদস্য। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জিনদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক হারুনূর রশিদ বলেন-আওয়ামীলীগের দুর্দিনের ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে দলে অনুপ্রবেশকারী ও সুবিধাভোগীদের দিয়ে গত ১৬ ই জুন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হালিমের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জিনদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৪১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটির ঘোষণা হবার পর থেকেই সোস্যাল মিডিয়াসহ সর্বমহলের নবগঠিত এই আহবায়ক কমিটি নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।
বিতর্কিত, অযোগ্য, সুবিধাবাধী, নব্য অনুপ্রবেশকারী এবং বিগত স্থানীয় সরকার নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে অবস্থানকারী, অন্যদল থেকে আগতদের সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে এবং জৈষ্ঠ্যতার তোয়াক্কা না করে এ কমিটি গঠিত হয়েছে। এতে প্রকৃত ও ত্যাগী নেতাকর্মী এবং দলের সমর্থকদের মধ্যে চরম হতাশা স্থবিরতা এবং নিষ্ক্রিয়তা দেখা দিয়েছে। কমিটিতে ত্যাগী ও বিগত স্থানীয় নির্বাচনে যারা নৌকার পক্ষে কঠোর ভাবে অবস্থান করেছে তাদেরকে বঞ্চিত করা হয়েছে। তিনি স্থানীয় সাংসদ মোঃ এবাদুল করিম বুলবুল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফয়জুর রহমান বাদল এবং সাধারন সম্পাদক এম এ হালিম সহ সকল সিনিয়র নেতৃবৃন্দের নিকট জিনোদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগকে সুসংগঠিত করতে অনতিবিলম্বে এই বিতর্কিত এবং অগ্রহণযোগ্য আহবায়ক কমিটি স্থগিত বা বাতিল করে পূনরায় যুগোপযোগী ও সর্বজন গ্রহণযোগ্য একটি কমিটি উপহার দিয়ে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের হতাশা নিষ্ক্রিয়তা লাঘব করার আহব্বান জানান। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বক্তরা বলেন,জিনদপুর ইউনিয়নের বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক সহ বেশ কয়েকজন নেতার বিরুদ্ধে বিগত এরশাদ ও বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের আমলে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে জুলুম নির্যাতন হামলা মামলার অভিযোগ তুলেন। এবং এক পরিবার থেকে দুই জন ব্যক্তি,জামাত বিএনপির সঙ্গে সরাসরি জড়িত এমন বেশ কয়েকজন নেতার নাম উলে¬খ করে তাদেরকে আহ্বায়ক কমিটিতে সম্পৃক্ত করার জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ হালিমকে দায়ী করেন। তাছাড়া অনতিবিলম্বে এই আহবায়ক কমিটি স্থগিত বা বাতিল না করা হলে কঠোর আন্দলনের হুশিয়ারি দেন উপস্থিত আওয়ামী লীগের অন্যান্য বক্তারা।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *