নাসির-মিমের প্রেমের গুঞ্জন

খেলাধুলা বিনোদন

ডেস্ক রিপোর্ট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসের দিনে তামিমা সুলতানা নামে এক নারীকে বিয়ে করেছেন দেশের আলোচিত ও সমালোচিত ক্রিকেটার নাসির হোসেন। এরপর ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর একটি অভিজাত হোটেলে হয় তাদের বিবাহত্তোর সংবর্ধনা।

নাসিরের ওই বিয়ে নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই আলোচনা-সমালোচনা তুঙ্গে। কারণ, তিনি যাকে বিয়ে করেছেন ওই নারী পূর্ব বিবাহিতা এবং তার ৮ বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। এমনকি আগের স্বামীকে তিনি তালাকও দেননি।

এমন রসালো বিতর্কের মধ্যেই যুক্ত হয়েছে আরও একটি নতুন বিতর্ক। তা হলো ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সঙ্গে অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমানের সাবেক স্ত্রী তথা মডেল মারিয়া মিমের সম্পর্ক। নাসিরের বিবাহ অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন মিম। সেখানে তারা একসঙ্গে ছবি তোলেন। সেই ছবি আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করেন। ব্যাস, ওই ছবি প্রকাশ হতেই নাসির ও মিমের সম্পর্ক নিয়ে নতুন আলোচনা শুরু হয়েছে। মিম নাকি নাসিরের সাবেক প্রেমিকা।

আসলেই কি তাই? এ ব্যাপারে মিম কী বলছেন? অনেকেই তাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় মেসেজ দিয়ে এবং ফোন করে জানতে চাচ্ছেন যে, নাসিরের সঙ্গে তার সম্পর্ক কী। এর উত্তরে ক্ষোভ প্রকাশ করে মিম তার ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘নাসির নাসির করে আমাকে মেসেজ দেওয়া বন্ধ করেন। আমি কারো পারসোনাল লাইফ নিয়ে পড়ে থাকি না। ওর ওয়াইফের কাহিনি সত্য না মিথ্যা নিউজ, এটা তো জানতে পারছেন। আমার কাছে জানার কী আছে?’

মিম কথা বলেছেন সংবাদমাধ্যমের সঙ্গেও। জানান, ‘বিভিন্নজন ফোন দিয়ে মেসেজ দিয়ে নাসির সম্পর্কে নানা কথা জিজ্ঞেস করছে। আমি অবাক হয়ে যাচ্ছি, আমাকে এসব জিজ্ঞেস করছে কেন? নাসিরের বিয়ের দাওয়াতে গিয়েছিলাম।ওর সঙ্গে বেশ কয়েকটি ছবিও তুলেছিলাম। সেগুলো ফেসবুকে পোস্ট করার পর থেকেই যন্ত্রণায় আছি। মানুষ অতিষ্ঠ করে তুলেছে। নাসিরের বিয়ের খবর প্রকাশ হওয়ার পর এখন শুরু হয়েছে, আমি নাকি ওর প্রেমিকা ছিলাম।’

তাহলে নাসিরের সঙ্গে মিমের সম্পর্ক কী? আলোচিত এই মডেল দাবি করেন, ‘স্রেফ বন্ধুত্ব। নাসির আমার বন্ধু। সেই হিসেবে আমাকে ওর বিয়েতে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। এর বাইরে কিছু না। বন্ধুর সঙ্গে কিছু ছবি তুলেছি, এই যা। তাছাড়া বিয়ের দাওয়াতে গেলে প্রত্যেকেই বরের সঙ্গে ছবি তোলে। এটা তো নতুন কিছু না।’

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত স্পেনের নাগরিক মডেল মারিয়া মিম হচ্ছেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমানের সাবেক স্ত্রী। ২০১২ সালের ২৪ মে তাদের বিয়ে হয়েছিল। পরের বছরের ২৫ জুন সাবেক এই দম্পতির সংসার আলো করে আসে পুত্রসন্তান আরশ হোসেন। কিন্তু ২০১৯ সালে ভেঙে যায় তাদের সম্পর্ক। ওই বছরের ২৩ অক্টোবর ডিভোর্স পেপারে সই করে আলাদা হয়ে যান সিদ্দিক ও মিম।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *