না ফেরার দেশে অভিনেতা দিলু

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক: না ফেরার দেশে চলে গেলেন মঞ্চ ও টিভি অভিনেতা মজিবুর রহমান দিলু। দুই সপ্তাহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর মঙ্গলবার ( ১৯ জানুয়ারি) ভোর সাড়ে ছয়টার দিকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালের তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন।

স্ত্রী রানী রহমান, দুই ছেলে অয়ন রহমান ও অতুল রহমান এবং মেয়ে তানজিলা মুজিবকে নিয়ে ঢাকার উত্তরায় বসবাস করতেন অভিনেতা দিলু। তিনি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলেন নিশ্চিত করেছেন তার বড় ভাই আতাউর রহমান।

ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘আমার ছোট ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা, কীর্তিমান মঞ্চ ও টেলিভিশন অভিনেতা মুজিবুর রহমান দিলু নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে আজ সকাল ৬টা ৩৫ মিনিটে এই পৃথিবীর মায়া ছেড়ে অসীমের যাত্রী হয়েছেন। সে জীবন যুদ্ধে যেমন ছিল এক পরাক্রান্ত সৈনিক, তেমনি ছিল এক বর্ণিল জীবনের অধিকারী। তার আত্মার চির শান্তি কামনাই দেশবাসীর কাছে আমাদের প্রত্যাশা।’

জানুয়ারির শুরুর দিকে ফুসফুসের সংক্রমণ নিয়ে উত্তরার একটি হাসপাতালে ভর্তি হন মুজিবুর রহমান দিলু। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে আইসিইউতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। চিকিৎসকরা জানান, অভিনেতার ফুসফুসের ৭০ ভাগই আক্রান্ত হয়েছিল। করোনা নেগেটিভ হলেও তিনি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত ছিলেন।

এর আগে ২০০৫ সালে গুলেন বারি সিনড্রোমে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন কোমায় ছিলেন দিলু। পরে তিনি সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবন-যাপন শুরু করেন। এরপর ২০১৫ সালে তার রক্তে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া ছড়িয়ে পড়েছিল। এছাড়া কিডনিতে পাথরও হয়েছিল। তখন চিকিৎসা করিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছিলেন এই অভিনেতা।

দিলুর অভিনয় জীবন শুরু হয়েছিল মঞ্চ নাটকের মাধ্যমে। ১৯৭২ সালে তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) তালিকাভুক্ত শিল্পী হন। ১৯৭৬ সাল থেকে টেলিভিশনে নিয়মিত অভিনয় শুরু করেন। সত্তরের দশকে বিটিভির কালজয়ী ধারাবাহিক নাটক ‘সংশপ্তক’-এর মালু চরিত্রে অভিনয় দিলুকে ব্যাপক পরিচিতি এনে দিয়েছিল।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *