নোয়াখালীতে কোরআন অবমাননার দায়ে হিন্দু যুবক আটক

সারাবাংলা

নোয়াখালী প্রতিনিধি
নোয়াখালী সদর উপজেলার নোয়ান্নই ইউনিয়নে পবিত্র ধর্ম-গ্রন্থ আল-কোরআনকে অবমাননার দায়ে টোটন সাহা (৩৫) নামের এক হিন্দু যুবককে আটক করেছে পুলিশ। একই সময় ওই যুবকের স্ত্রীর বিরুদ্ধে গীতা অবমাননার অভিযোগ উঠলে তাকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ।  রোববার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রাম থেকে স্থানীয় জনতা ওই যুবককে আটকের পর পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। পরে স্বামীর সাথে সাথে স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তারকে আটক করা হয়। আটককৃত টোটন সাহা রামকৃষ্ণপুর গ্রামের হারাধন সাহার ছেলে এবং ইয়াসমিন আক্তার জেলার সুবর্ণচর উপজেলার আবদুল মতিনের মেয়ে। তারা দুইজনই সর্ম্পকে স্বামী-স্ত্রী।
টোটন সাহার স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার জানান, ২০১১ সালে তথ্য গোপন করে ইসলামি শরিয়াহ মোতাবেক তার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন টোটন সাহা। বিয়ের এক বছর পর তিনি জানতে পারেন তার স্বামী হিন্দু ধর্মের অনুসারী। পরে স্ত্রীর ইয়াসমিনের কাছে ক্ষমা চেয়ে টোটন সাহা ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে পরিস্থিতি শান্ত করেন। কিন্তু পরবর্তীতে টোটন সাহা স্ত্রী ইয়াসমিনকে হিন্দু ধর্ম পালনে চাপ প্রয়োগ করলে শুরু হয় তাদের দাম্পত্য জীবনে কলহ। নিজ ধর্ম ইসলাম পালন করতে গিয়ে একাধিকবার স্বামীর নির্যাতনের শিকারও হন ইয়াসমিন আক্তার।
গতকাল রোববার ভোর রাতে ফজর নামাজ শেষে কোরআন শরীফ পাঠ করছেন ইয়াসমিন আক্তার। এ সময় কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই টোটন সাহা স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তারের সামনে থেকে জোরপূর্বক পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল-কোরআন, তসবিহ ও নামাজের জায়নামাজ ছিনিয়ে নিয়ে পুকুরের জলে ফেলে দেয়।
পরে ইয়াসমিন আক্তারের শোর-চিৎকারে স্থানীয় লোকজন গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত টোটন সাহাকে আটক করে সুধারাম থানায় খবর দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করে। নোয়ান্নই ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোবারক হোসেন বলেন, পবিত্র ধর্ম-গ্রন্থ আল-কোরআনকে অবমাননা খুবই দুঃখজনক। এ ঘৃণিত কাজের জন্য টোটন সাহাকে দেশের প্রচলিত আইনে শাস্তি প্রদান করা হোক। তার শাস্তি দেখে যেন অন্য কেউ ধর্ম নিয়ে এমন অন্যায় কাজ করার সাহস না পায়। টোটনের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার অসুস্থতার কারণে টোটনের কাছে টাকা চাইলে টোটন ইয়াসমিনকে হিন্দু ধর্ম পালন করতে বলে। এতে ইয়াসমিন ক্ষিপ্ত হয়ে হিন্দু ধর্মীয় গীতা জলে ফেলে দেয়। পরবর্তীতে টোটনও ক্ষুব্ধ হয়ে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ ধর্মগ্রন্থ আল-কোরআন, তসবিহ ও নামাজের জায়নামাজ ছিনিয়ে নিয়ে পুকুরের জলে পেলে দেয়।
সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহেদ উদ্দিন জানান, পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল-কোরআন অবমাননার দায়ে টোটনকে আটক করা হয়েছে। টোটনের ভাষ্যমতে তার স্ত্রী হিন্দু ধর্মীয় গীতাও পানিতে ফেলে দেয়। তারা ইয়াসমিনকেও জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *