নড়াইলে ছেলের মৃত্যুদণ্ড, মায়ের যাবজ্জীবন

সারাবাংলা

ডেস্ক রিপোর্ট: নড়াইলে হালিমা বেগম নামে এক নারীকে হত্যার দায়ে ছেলের ফাঁসির আদেশ ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং মাসহ অপর প্রতিবেশীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নড়াইল জেলা ও দায়রা জজ মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত আসামি হলেন- নড়াইল শহরের ভওয়াখালী গ্রামের সলেমান সরদারের ছেলে সেলিম সরদার (২৮) এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলো মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামির মা মোমেনা বেগম (৫৫) ও প্রতিবেশী মো. কবির খানের ছেলে সাজ্জাদ খান (২৫)।

রায় ঘোষণাকালে আসামি মোমেনা বেগম আদালতে উপস্থিত ছিলেন। বাকির দুজন পলাতক আছেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১৭ মে আসামি সেলিম সরদার ব্র্যাক ব্যাংকের ম্যানেজারের টাকা ছিনতাই করেন। ঘটনাটি প্রতিবেশী হালিমা বেগম দেখে স্থানীয় লোকজনকে জানান।

ওই দিন সন্ধ্যা ৭টার দিকে সেলিমের মা আসামি মোমেনা বেগম ভুক্তভোগী হালিমাকে তাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে আসেন। কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে সেলিম সরদার কোদাল দিয়ে হালিমাকে মাথায় আঘাত করেন।

এ সময় সেলিমের মা মোমেনা বেগম এবং অপর আসামি সাজ্জাদ খান হালিমাকে কিল, লাথিসহ মারধর করে। আহত হালিমা খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এ ঘটনায় নিহতের স্বামী শুকুর আলী সরদার বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামি করে নড়াইল সদর থানায় মামলা করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নড়াইল সদর থানার ওসি (তদন্ত) দেলোয়ার হোসেন তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। বিচারক সাক্ষীদের সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় এ রায় ঘোষণা করেন।

নড়াইল আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট ইমদাদুল ইসলাম এমদাদ বলেন, চাঞ্চল্যকর হালিমা বেগম হত্যা মামলার রায়ে নড়াইলের জেলা ও দায়রা জজ মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় একজনকে ফাঁসির আদেশ ও দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন।

কারাগারে থাকা আসামির সাজা কার্যকর এবং পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের পর সাজা কার্যকর করার আদেশ দেন।

 

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *