পঞ্চগড়ে মাতৃত্বকালীন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ

সারাবাংলা

সেলিম সোহাগ, পঞ্চগড় থেকে
পঞ্চগড়ের বোদায় দরিদ্র মায়ের জন্য মাতৃত্বকালীন ভাতা তালিকাভুক্ত হওয়ার চার বছরেও ভাতা না পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে ২১ সেপ্টেম্বর লিখিত অভিযোগ করেছেন ৫নং বড়শশী ইউনিয়নের সুবিধাভোগী দরিদ্র মায়েরা। অভিযোগে জানা যায়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বোদা উপজেলার বড়শশী ইউনিয়নে দরিদ্র মায়ের জন্য মাতৃত্বকালীন ভাতার জন্য বাংলাদেশী ৮০ ও নতুন বাংলার (সাবেক ছিটমহলবাসী) জন্য ৭০, মোট ১৫০ জন ইউনিয়ন পরিষদ তাদের সুবিধাভোগী নির্বাচিত করেন। পরে জুলাই ২০১৭ সালে একবার ৩ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়, পরে ডিসেম্বরে শুধু বাংলাদেশী ৮০ জন ভাতা পায়। নতুন বাংলার ৭০ জনের কপালে এখনও সেই ডিসেম্বর ফিরেনি। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোমাদের টাকা আর আসে নাই বলে জানান। এর থেকে বেশী কিছু জানি না, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জানেন। বারবার চেয়ারম্যানকে অভিযোগ করেও কোন সুরহা পায়নি।
নতুন বাংলার কয়েকজন মাতৃত্বভাতা ভোগীরা জানান, সবাই টাকা পেল, কিন্তু আমরা ৭০ জন নারী একবার টাকা পেয়ে আর পেলাম না চার বছর হয়ে গেল। আমরা চেয়ারম্যানকে অভিযোগ করেও কোন সুরহা পাইনি। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন বলেন, মাতৃত্বকালীন ভাতার বিষয়ে উপজেলা থেকে চিঠি আসছিল যে, একব্যক্তি একের অধিক সরকারি কোন সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে না। আমরা সে অনুপাতে পরবর্তীতে তালিকা করেছিলাম। হয়তো সেজন্য বাদ পড়ে গেছে। বোদা উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মরিয়ম খানম জানান, সাবেক ছিটমহলবাসী নিয়ে নাম ঠিকানার ভুলভ্রান্তি ছিল। আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে চিঠি লিখেছি, টাকা অবশ্যই পাবেন। বোদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোলেমান আলী অভিযোগের বিষয়ে নিশ্চিত করে বলেন, তদন্ত সাপেক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *