পরকীয়ার জেরে তালাক দেওয়ায় সোহেলকে খুন

সারাবাংলা

সাদ্দাম হোসেন গনি, ফেনী থেকে
ফেনী শহরের নাজির রোডে স্বামীর পরকিয়ার জেরে তালাক দেওয়ার ঘটনায় আলোচিত দুবাই প্রবাসী মো. সোহেলকে কুপিয়ে হত্যা করে দুই সন্তান নিয়ে পালিয়ে যায় স্ত্রী রোকেয়া আক্তার শিউলি। রোববার সকালে র‌্যাব-৭ এর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-৭ এর কোম্পানী অধিনায়ক স্কোয়াড্রন লীডার আব্দুল্লাহ আল জাবের ইমরান।
তিনি জানান, গত ১৬ জুলাই দেশে আসেন দুবাই প্রবাসী সোহেল। এরপর থেকে পরকিয়া সম্পর্ক নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঘটনার দিন কথা কাটাকাটি এক পর্যায়ে সোহেল তার স্ত্রী শিউলিকে মৌখিকভাবে তালাক দেয়। এতে তাদের দাম্পত্য কলহ চরমে পৌঁছায়।
তালাক দেয়ার ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে সোহেলকে তার স্ত্রী শিউলি রান্না ঘর থেকে ধারালো বটি এনে পেছন থেকে কুপিয়ে ও গলাকেটে নৃশংসভাবে হত্যা করে। তিনি জানান, হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হওয়ার পর রাত ১টার দিকে শিউলি দু’সন্তানকে নিয়ে বাসার দারোয়ানকে তার বাবা মারা যাওয়ার কথা বলে দু’সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে যান। এরপর ট্রেনযোগে চট্টগ্রাম গিয়ে সারাদিন ফটিকছড়িতে অবস্থান করে। পরে রাত ৩টায় কুমিল্লায় চাচার বাড়িতে আত্মগোপন করেন। তিনি আরও জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে র‌্যাব-৭ একটি দল গত শনিবার অভিযান চালিয়ে কুমিল্লায় চাচার বাড়ি থেকে শিউলিকে গ্রেফতার ও দু’সন্তানকে উদ্ধার করা হয়। র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শিউলি হত্যাকাণ্ডে নিজের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করে। পরে শিউলির দেওয়া তথ্য মতে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রটি শহরের নাজির রোডের চৌধুরী সুলতানা ভবন সংলগ্ন একটি ডোবা থেকে জব্দ করা হয়। এর আগে গত শুক্রবার রাতে সোহেলের মা নিরালা বেগম বাদী হয়ে স্ত্রী শিউলী আক্তারকে একমাত্র আসামি করে ফেনী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার সকালে ফেনী শহরের নাজির রোডের চৌধুরী সুলতানা ভবনের একটি ফ্ল্যাট থেকে প্রবাসী সোহেলের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত সোহেল কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের খাটরা গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *