পরিবার রাজি না হওয়ায় `প্রেমিক যুগলের আত্নহত্যা’!

Uncategorized সারাবাংলা

পটুয়াখালী প্রতিনিধি: বিয়ের প্রস্তাবে পরিবার সম্মতি না দেওয়ায় অভিমান করে নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থী মো. রাজিব ও রাবেয়া আক্তার এক সঙ্গে বিষ পান করে আত্মহত্যা করার ঘটনা ঘটেছে। অপরিণত বয়সে প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া দুই কিশোর-কিশোরীর একসঙ্গে মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার রাঙ্গাবালীর বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের টুঙ্গিবাড়িয়া গ্রামে।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ওই এলাকার কাটাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী এক সঙ্গে বিষ পান করে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাদের উদ্ধার করে ট্রলার যোগে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে মৃত্যু হয়। কলাপাড়া হাসপাতালের চিকিৎসক শাকুরুজ্জামান তাদের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আজ বুধবার সকালে নিহতদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠিয়ে দিয়েছে কলাপাড়া থানা পুলিশ। এঘটনায় কলাপাড়া থানায় দুটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে বলে কলাপাড়া থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

নিহতদের স্বজনদের সূত্রে জানাগেছে, একই গ্রামের এবং এক সঙ্গে একই বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করার সুবাদে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের প্রেমের সম্পর্ক গড়িয়ে যায় বিয়ে পিড়িতে বসার বাসনা পর্যন্ত। কিন্তু কিশোর রাজিব প্যাদা ও কিশোরী রাবেয়া আক্তারের বিয়ের প্রস্তাব গত এক মাস আগে প্রত্যাক্ষান করে রাজিবের পিতা জহির প্যাদা। এতে কিশোরী রাবেয়ার পিতা রিপন হাওলাদার নিরুপায় হয়ে মেয়েকে বয়সের দোহাই দিয়ে শান্তনা প্রদান করে। অবশেষে প্রেমের সম্পর্ক বিচ্ছেদে পরিনত হওয়ার শঙ্কায় তারা একসঙ্গে বিষ পানে আত্মহত্যা করে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *