পাকিস্তানে বাস বিস্ফোরণ: ছয় চীনা নাগরিকসহ নিহত ৮

আন্তর্জাতিক

ডেস্ক রিপোর্ট : পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলে খাইবার পাখতুনওয়া প্রদেশের হাজারা অঞ্চলের কোহিস্তানে বাস বিস্ফোরণে ৮ জন নিহত হয়েছেন; নিহতদের মধ্যে ৬ জনই চীনের নাগরিক। দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী ও সরকারি বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে করা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

বুধবার (১৪ জুলাই) সকালের দিকে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বাইরে থেকে বোমা ছোড়ার ফলে এই বিস্ফোরণ হয়েছে না কি রিমোট কন্ট্রোল নিয়ন্ত্রিত বোমার মাধ্যমে এই বিস্ফোরণ ঘটনো হয়েছে- তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের একজন জেষ্ঠ্য প্রশাসনিক কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের ফলে ঘটনাস্থলেই ৬ জন চীনা প্রৌকশলী, কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর এক সেনা সদস্য এবং স্থানীয় এক প্রশাসনিক কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন।

ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘বিস্ফোরণের ফলে বাসটি সড়কের পার্শবর্তী গিরিখাতে গিয়ে পড়েছে। একজন চীনা প্রকৌশলী ও সেনা সদস্যের মরদেহ এখনও পাওয়া যায়নি। বাসের প্রায় সবাই আহত হয়েছেন, কয়েক জনের অবস্থা গুরুতর।’

‘আহতদের উদ্ধারে সেখানে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে তাদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা সেবা দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, এই ঘটনা তদন্তে খুব শিগগিরই কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে ঘোষণায়।’

চীনের অর্থায়নে পাকিস্তানে চায়না-পাকিস্তান ইকোনমিক করিডোর (সিপিইসি) নামে যে ৬৫০ কোটি ডলারের বিশাল প্রকল্পের কাজ চলছে, তারই একটি অংশ দাসু জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন। চীনের ভবন ও সড়ক নির্মাণকারী সরকারী প্রতিষ্ঠান বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ (বিআরআই) এই প্রকল্পটির কাজ তদারক করছে।

সিপিইসি প্রকল্পের কাজ সম্পূর্ণ হলে পাকিস্তানের বালুচিস্তান প্রদেশের গোয়াদর সমুদ্র বন্দরের সঙ্গে চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের সরাসারি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে।পাশাপাশি ওই অঞ্চলের অবকাঠামোগত বিভিন্ন প্রকল্পের কাজও করছে বিআরআই।

বুধবারের হামলার সঙ্গে কে বা কারা যুক্ত তা এখনও জানা যায়নি। কোনো ব্যক্তি বা সংগঠন এখন পর্যন্ত হামলার দায় স্বীকার বিবৃতিও দেয়নি।

সূত্র : রয়টার্স

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *