পিরোজপুরে পোড়ানো হলো জব্দকৃত কারেন্ট জাল

সারাবাংলা

পিরোজপুর প্রতিনিধি:
নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ আহরণ করায় পিরোজপুরে গত ১৫ দিনে ১ কোটি ১৫ লাখ টাকার জাল জব্দ করে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া একই সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত ৭টি মামলায় ৬৩ হাজার টাকা জরিমানা ও ১টি মামলায় ১ জনকে এক মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে। ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধিতে গত ১৪ অক্টোবর থেকে পিরোজপুরসহ সারা দেশের বিভিন্ন নদ-নদী সাগরে মা ইলিশ আহরণ বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। এ নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ ৪ নভেম্বর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। পিরোজপুরে ১৭ হাজার জন জেলের মধ্যে ৩৪০ টন চাল বিতরণ করেছে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ। প্রত্যেক জেলেকে ইতোমধ্যেই ২০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়েছে। এ মাসের ১৪ অক্টোবর থেকে এ পর্যন্ত ১৫ দিনে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ আহরণকারী জেলেদের বিরুদ্ধে জেলার কঁচা, বলেশ্বর, সন্ধ্যা, পোনা ও কালিগঙ্গাসহ সকল নদ-নদীতে ৮১টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে পরিচালিত এসব আদালত ১৪৪টি অভিযান চালিয়ে ৫ লক্ষ ৫ শত ৯৭ মিটার কারেন্ট জাল এবং ১০৭ টি অন্যান্য জাল জব্দ করে পুড়িয়ে দিয়েছে, যার বাজার মূল্য ১ কোটি ১৫ লক্ষ ৪৭ হাজার ৫শ টাকা। এছাড়া একই সময় ৮১ কেজি মা ইলিশ জব্দ করা হয়। এসব অভিযানে ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াও মৎস্য বিভাগের কর্মকর্ত, পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও নৌ-পুলিশ অংশগ্রহণ করে। এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় পিরোজপুরে ১১টি অভিযান চালিয়ে ৪ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা মূল্যের ২০ হাজার ৫শত মিটার জাল জব্দ করে পুড়িয়ে দেয়া দেয়া হয়েছে। জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আব্দুল বারী জানিয়েছেন, ঝাঁকে-ঝাঁকে ডিমওয়ালা ইলিশ ডিম ছাড়তে সাগর থেকে চলে এসে মিঠা পানির নদ-নদীতে অবস্থান নেয় বিধায় চলতি মাসের ১৪ তারিখ থেকে ইলিশ আহরণ পরিবহন বিক্রয় নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আরো জানান গত কয়েক বছর ধরে বর্তমান সরকার জাটকা নিধন বন্ধ এবং মা ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ করায় পিরোজপুর সহ দেশের বিভিন্ন নদ-নদীতে ইলিশের উৎপাদন রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *