পুলিশ দেখে পুকুরে ঝাঁপ দিলেও শেষ রক্ষা হয়নি

সারাবাংলা

যশোর প্রতিনিধি:
পুলিশ দেখে পুকুরে ঝাঁপ দিয়েছিলেন মাদক মামলার ওয়ারেন্টের আসামি মনিরুল ইসলাম (৩৬)। কিন্তু তার শেষ রক্ষা হয়নি। পুলিশের হাতেই তাকে গ্রেফতার হতে হয়েছে। বিকালে যশোর কালেক্টরেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে পুকুরে ঝাঁপ দেওয়ার কারণে ওই আসামি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। এ কারণে গ্রেফতারের পর পুলিশ তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। মনিরুল ইসলাম যশোর শহরতলীর শেখহাটি দক্ষিণপাড়ার জেহের আলীর ছেলে। প্রত্যক্ষদশীরা জানান, বিকেল ৩টার দিকে মনিরুল ইসলাম নামের ওই ব্যাক্তি কালেক্টরেট পুকুরের পশ্চিমে তার মোটরসাইকেল রেখে পাশে আদালত চত্বর এলাকায় অবস্থান করছিলেন। এ সময় পুলিশ দেখতে পেয়ে দৌড়ে আদালত সীমানার উত্তরের পকেট গেট দিয়ে বেরিয়ে ঝাঁপ দেন কালেক্টরেট পুকুরে। পুলিশও তার পিছু ছুটে আসে। স্থানীয় লোকজনও এ দৃশ্য দেখে সেখানে জড়ো হয়ে যান। পরে মনিরুল ইসলাম কোনো উপায় না পেয়ে পুকুর থেকে উঠে আসেন। কিন্তু পুকুরে ঝাঁপ দেওয়ার কারণে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। ফলে পুলিশ তাকে গ্রেফতারের পর যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। পুলিশ জানান, মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের একটি মামলার ওয়ারেন্ট রয়েছে। পলিশ জানতে পেরে ওই আসামি কালেক্টরেট এলাকায় অবস্থান করছে। এমন খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গেলে আসামি পলানোর জন্য পুকুরে ঝাঁপ দিয়েছিলেন। কিন্তু তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। সদরের তালবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আল ইমরান তাকে গ্রেফতার করেন। মনিরুল ইসলামের চাচাতো ভাই মঞ্জু জানান, ওয়ারেন্ট থাকায় তার ভাই আদালতে আত্নসমর্পণ করে জামিন নেওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন। কিন্তু পরে খবর পান তার ভাই পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *