পৌরসভা নির্বাচন বাকেরগঞ্জ ও উজিরপুরে নৌকার বিজয়

সারাবাংলা

বরিশাল ব্যুরো :
বরিশালের বাকেরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী লোকমান হোসেন ডাকুয়া ও উজিরপুরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন বিজয়ী হয়েছেন। সোমবার রাত ৮টার দিকে পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল আলম বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে লোকমান ডাকুয়া পেয়েছেন ৭ হাজার ৪১ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মাওলানা খলিলুর রহমান ২ হাজার ৪১১ ভোট এবং বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী এস,এম মনিরুজ্জামান পেয়েছেন ৯১৪ ভোট। রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল আলম জানান-‘বাকেরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডের ৯টি কেন্দ্রের ৪৯টি বুথে (ভোট কক্ষ) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এই পৌরসভায় মোট ভোটার ১৫ হাজার ৩০৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৬৭০ জন এবং নারী ভোটার ৭ হাজার ৬৩৪ জন। ভোট দিয়েছেন ১০ হাজার ৩৬৬ জন। ভোট বাতিল হয়েছে ৩১টি। সে হিসাবে এ পৌরসভায় ৬৮ ভাগ ভোট পড়েছে। অপরদিকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বরিশালের উজিরপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন বেপারী পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতিকে ৫ হাজার ৭০৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি বিএনপি প্রার্থী মো: শহিদুল ইসলাম খান ধানের শীষ প্রতিকে ৭৬৫ ভোট পেয়েছেন। এছাড়া ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী কাজী শহিদুল ইসলাম হাত পাখা প্রতিকে ৬১০ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন। নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোটের গড় হার ৫৯ ভাগ। প্রসঙ্গ পৌরসভার ৯ টি ভোট কেন্দ্রে ভোটার ছিলো ১১হাজার ৯২৪ জন । এর মধ্যে ৫ হাজার ৯৩৬ জন নারী ভোটার ও ৫ হাজার ৯৮৮ জন পুরুষ ভোটার । নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোটের গড় ৫৯ ভাগ। এদিকে ৯ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২ টি ওয়ার্ডে ২জন পুরুষ কাউন্সিলর প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হন। ফলে বিজয়ী হওয়ায় ৭টি ওয়ার্ডে ২২ জন কাউন্সিলর ও নারী কাউন্সিলর প্রার্থী ভোট যুদ্ধে অবর্তীণ হন। উল্লেখ্য এ বছর উজিরপুর পৌরসভায় প্রথমবারের মত ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ফলে ভোটারদের মধ্যে এ নিয়ে কৌতুহল ও অনভিজ্ঞতার ভীতি ছিলো। না বোযায় কিছু ভোটারের আঙ্গুলের ছাপে প্রথমে সমস্যা হলেও শেষ পর্যন্ত সহজে ও নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পেরে ভোটাররা সন্তোষ প্রকাশ করেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *