প্রতিবন্ধী হয়েও কারও কাছে হাত পাতেন না

সারাবাংলা

ওমর ফারুক, রাজশাহী ব্যুরো : বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টা। রাজশাহী মহানগরীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কোর্ট স্টেশন এলাকায় অন্যান্য দিনের মতোই মানুষের কোলাহাল। যে যার মতো কাজে ব্যস্ত রয়েছেন। এর মধ্যেই চার্জার চালিত প্রতিবন্ধীদের জন্য তৈরি করা বিশেষ ভ্যান থেকে সাউন্ড বক্সের মাধ্যমে মোবাইল স্ট্যান্ড ব্যবহার সম্পর্কিত উপকারিতা নিয়ে বিভিন্ন আওয়াজ ভেসে আসছে। একটি মোবাইল স্ট্যান্ড কেনার জন্য আহবান জানানো হচ্ছে মানুষকে। কাছে গিয়ে দেখা যায়, এক প্রতিবন্ধী সেই মোবাইল স্ট্যান্ড মাত্র ১০ টাকায় মানুষের কাছে বিক্রি করছে। হাসি খুশি ভাবেই বিক্রি করছেন তিনি। সাউন্ড বক্সের মাধ্যমে পথচারীদের সেই মোবাইল স্ট্যান্ড কেনার জন্য অনুরোধ জানানো হচ্ছে। সেই সাথে কেনার উপকারিতাও বলা হচ্ছে। পথচারীরা ইচ্ছে হলে কিনছেন, ইচ্ছে না হলে কিনছেন না। তার মতো অনেক পঙ্গু বা স্বাভাবিক মানুষ মানুষের কাছে হাত পেতে ভিক্ষা করেন। কিন্ত তিনি তা না করে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। যা অন্য মানুষকে উৎসাহ জোগাবে। নাম জিজ্ঞেস করতেই অনেক কষ্টে সেই প্রতিবন্ধী তার নাম জানালেন বিশাল। বয়স ২০ বছর। বাড়ি রাজশাহী মহানগরীর অদূরে ৯ নং ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত বসুয়া এলাকায়। বাড়িতে মা ও এক ভাই এবং এক বোন রয়েছে। কতদিন ধরে এই ব্যবসা করছেন তা জানতে চাইলে, হাতের ইশারায় জানান, কয়েক মাস ধরে ব্যবসা করছেন। আগে তিনি কি করতেন জানতে চাইলে হাতের ইশারায় জানান, ভিক্ষা করতেন। দুই বছর হয়েছে ভিক্ষা ছাড়া। প্রত্যেকটি উত্তর ইশারা ও ইঙ্গিতে দেন। তার কে কে আছে জানতে চাইলে তিনি হাতের ইশারায় একটি মোবাইল নম্বর দেন। সেই মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করে জানা গেছে, শিশুকাল থেকে বিশাল পঙ্গু। তার হাত ও পা দুটোতেই সমস্যা। হাঁটতে পারেন না বিশাল। কথাও বলতে পারেনা স্পষ্ট করে। নামটা কোনমতে বলতে পারলেও বাকি কথাবার্তা ইশারায় বোঝানোর চেষ্টা করেন।

অভাব ও অনটনের সংসার হওয়ায় তার পরিবার থেকে তাকে ভিক্ষা করার জন্য বসিয়ে দেয়া হয়। তারপর থেকে ভিক্ষা করেই জীবিকা নির্বাহ করতেন। এভাবে দীর্ঘদিন কেটে গেছে। কিন্ত বিশাল ইশারায় জানাতেন তার ভিক্ষা করতে ভালো লাগেনা। এ কারণে দুই বছর থেকে তাকে ভিক্ষা করতে দেয়া হয়না। হাত ও পা দুটিই পঙ্গু হওয়ার পরেও কাজ করে খাওয়ার ইচ্ছা তার। তার ইচ্ছা অনুযায়ী সাধ্যের মধ্যে বিভিন্ন কাজ করতো। এই আগ্রহ দেখে পাড়ার এক যুবক তাকে সাউন্ড বক্স কিনে দিয়ে চার্জার ভ্যানে সেটি বেঁধে দিয়ে কিছু মোবাইল স্ট্যান্ড কিনে দেয়। এরপর থেকে বিশাল নগরের রাস্তায় ঘুরে ঘুরে মোবাইল স্ট্যান্ড বিক্রি করছেন। দামে কম হওয়ায় অনেক পথচারীই সেই স্ট্যান্ড কেনেন। এখন তাকে আর কারো কাছে হাত পাততে হয়না। হাত পেতে কারো কাছে টাকাও চাননা। কেউ ভালোবেসে খুশি মনে কোন কিছু দিলে সেটি গ্রহণ করেন।

প্রতিবেদকের সাথে কথা বলার সময় বিশাল ইঙ্গিতে বোঝানোর চেষ্টা করেন, তিনি আর ভিক্ষা করতে চাননা। কাজ করে নিজের জীবিকা নির্বাহ করতে চান। ব্যবসা করতে পেরে অনেক খুশি। কারণ কাজ করার মধ্যে আনন্দ আছে। হাসিমুখে ছবিও ছবি তোলেন।

তার বাড়ির নম্বরে যোগাযোগ করলে জানানো হয়, যদি সমাজের কোন বিত্তবান ব্যক্তি তাকে অর্থ সহায়তা দেয় তাহলে বাড়ির পাশে দোকান দিয়ে নিজের জীবিকা নির্বাহ করতে পারে। তাকে আর মানুষের কাছে হাত পাততে হবে না। এ জন্য সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহবান জানান তারা। বিশালের সাথে যোগাযোগের নম্বর-০১৯৫৬৫৭৭০২৪। কেউ তাকে সহায়তা করতে চাইলে এই নম্বরে বা তার বাড়ি বসুয়ায় যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

দেশবিদেশের গুরুত্বপূর্ণ সব সংবাদ পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *