https://www.dhakaprotidin.com/wp-content/uploads/2021/01/Dinajpur.jpg

প্রতিষ্ঠাতার নামে কলেজ ভবন নির্মাণের নামকরণ করার দাবি গণমানুষের

সারাবাংলা

দিনাজপুর প্রতিনিধি : কলেজিয়েট গার্লস স্কুলের কলেজের প্রতিষ্ঠাতার নামে কলেজ ভবন নির্মাণের নামকরণ করার দাবি গণমানুষের। ১৯৬৭ সালে সাবেক সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ছাত্র কমন রুম, কলেজ ক্যান্টিন এবং কলেজ ছাত্র সংসদ রুমকে কেন্দ্র করে কলেজিয়েট গার্সস্ স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয়। এভাবে ১৯৮০-৮২ সাল পর্যন্ত ওই নারী বা বালিকা প্রতিষ্ঠানটি দুঃখ ও দুর্দশার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যেতে থাকে। এমন অবস্থায় ১৯৮৮-৮৯ সালে শহরের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের অনুরোধে মোহাম্মদ আলী চৌধুরী ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গভর্নিং বডিতে যোগদান করে। তিনি ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনা করে অতি দ্রুততার সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের উন্নতিকল্পে আত্মনিয়োগ করেন। প্রথমে তিনি আরডিআরএস ঠাকুরগাঁও কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে ৭৫ ফিট পাকা টিনসেড বিল্ডিং নির্মাণ করেন। দ্বিতীয়ত এডিসি রাজস্ব সভাপতি থাকাকালীন সময়ে মোহাম্মদ আলী চৌধুরী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা সচিব এর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে একটি ৭৫ ফুট দোতলা বিল্ডিং প্রতিষ্ঠা করে। এ ছাড়া জেলা পরিষদের সচিবের সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করে ছাত্রীদের জন্য ৪টি শৌচাগার নির্মাণ করেন। এরপর গুলবেগম প্রধান শিক্ষিকা থাকাকালীন সময়ে শিক্ষক কমন রুমসহ সঙ্গে ছাত্রী বিজ্ঞানাগার নির্মাণ করেন। অবশেষে ১৯৯৪ সালে মোহাম্মদ আলী চৌধুরী প্রস্তাবে এবং গভর্নিং বডির সর্বসম্মতিক্রমে এডিসি রাজস্ব এর সভাপতিত্বে কলেজিয়েট গার্লস স্কুলে কলেজ সংযোজন করা হয়। তবে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের তদানিন্তন কলেজ পরিদর্শক মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর কাছে এই মর্মে নিশ্চয়তা আদায় করেন যে, মোহাম্মদ আলী চৌধুরী যে কোনো মূল্যে কলেজিয়েট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কলেজ ছাত্রীদের জন্য পৃথক কলেজভবন নির্মাণের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এই সূত্র ধরে বোর্ড কর্তৃপক্ষ ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কলেজ প্রতিষ্ঠার অনুমতি দেন। এরপর মোহাম্মদ আলী চৌধুরী কলেজ ভবন নির্মাণের লক্ষ্যে শিক্ষা সচিব বরাবর প্রচেষ্টা চালিয়ে যান। অবশেষে তিনি সাবেক তত্ত¡াবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৭ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর সাবেক তত্ত¡াবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা বরাবর তার দফতরে কলেজ ভবন নির্মাণের জন্য দিনাজপুর জেলাবাসীর পক্ষে দরখাস্ত দাখিল করেন। এরপরে শিক্ষা সচিব একাধিকবার মোহাম্মদ আলী চৌধুরীকে তার দফতরে ডেকে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কলেজ ভবন নির্মাণ করা হবে মর্মে তাকে অবহিত করেন। এরপর দিনাজপুর-৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট কাজী লুৎফর রহমান চৌধুরীর ২০০৯ সালে একটি চিঠি মোহাম্মদ আলী চৌধুরী শিক্ষামন্ত্রী বরাবর পৌঁছে দেন। মন্ত্রী সেই চিঠির সূত্র ধরে মোহাম্মদ আলী চৌধুরীকে জানান, দিনাজপুর কলেজিয়েট গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে কলেজ ভবন নির্মাণের সব ব্যবস্থা চ‚ড়ান্ত হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভলিয়মে লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। কলেজ ভবন নির্মাণের অবিলম্বে কাগজপত্র এবং আদেশ ফ্যাসিলিটিজ বিভাগে পাঠানো হবে। এরপর তার কলেজ ভবন নির্মাণের যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে দিনাজপুর কলেজিয়েট গার্লস স্কুল কলেজের চার তালা বিশিষ্ট কলেজ ভবন নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে। দিনাজপুর কলেজিয়েট গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ ভবনের নামকরণ মোহাম্মদ আলী চৌধুরী বিল্ডিং করার দাবি গণমানুষের। গণমানুষের দাবি দিনাজপুর কলেজিয়েট গার্লস্ স্কুল অ্যান্ড কলেজ ভবনের নামকরণ মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর নামে করা হোক।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *