প্রেমিক খাঁচায় প্রেমিকা বন্দী অতঃপর ধর্ষণ

সারাবাংলা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
আঁখ ক্ষেতে ছাগল বন্দী, জলে বন্দী মাছ…. নারীর কাছে পুরুষ বন্দী ঘুড়ায় বারো মাস গানের কথাগুলো শ্পর্ষকাতর হলেও কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে ঘটেছে এর পুরো উল্টো ঘটনা।
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে এসে এক যুবতী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১২টায় কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবণী পয়েন্ট সংলগ্ন বিজিবির উর্মি রেস্তোরাঁর পাশে এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের শিকার যুবতীর আনুমানিক বয়স ১৮ বছর। তার বাড়ি চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের হাঁসের দিঘী এলাকায়।

ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ওসমান সরওয়ার (২৬) কক্সবাজার শহরের কলাতলী সংলগ্ন আদর্শগ্রাম এলাকার আবুল বশরের ছেলে। সে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবণী পয়েন্ট এলাকায় পর্যটক ছাতা পরিচালনাকারি।

অভিযোগের বরাতে কক্সবাজার সদর থানার ওসি মুনীর-উল গীয়াস বলেন, ভূক্তভোগী যুবতীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে জনৈক ব্যক্তির পরিচয় ঘটে। বুধবার বিকালে চকরিয়া থেকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত এলাকায় প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে আসে ওই যুবতী। ভূক্তভোগী যুবতী কক্সবাজার সৈকতে পৌঁছার পর থেকে প্রেমিকের মোবাইল ফোন বন্ধ পায়। পরে দীর্ঘ সময় ধরে অপেক্ষার পর রাতে সৈকতের লাবণী পয়েন্ট এলাকায় পর্যটক ছাতা ভাড়া নেয়। রাতের এক পর্যায়ে ওই যুবতীকে নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেয়ার কথা জানায় ওসমান। পরে উর্মি রেস্তোরাঁর পাশে নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ওই যুবতীকে ধর্ষণ করে সে।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে ভূক্তভোগী যুবতী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে বলে জানান মুনীর-উল গীয়াস। তিনি আরো বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবণী পয়েন্ট অভিযুক্ত ওসমান সরওয়ারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে আসামি করে মামলা দায়ের হয়েছে। ভূক্তভোগী যুবতীকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *