পড়াতে এসে ছাত্রী ধর্ষণ, শিক্ষক গ্রেপ্তার

সারাবাংলা

ডেস্ক রিপোর্ট: সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী (আদিবাসী) এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লাকে (৩৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার (১৯ মার্চ) রাতে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ধর্ষণের পর গণপিটুনির শিকার হয়ে আহত আবু সাইদ পুলিশি প্রহরায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আবু সাইদ তাড়াশ উপজেলা তালম ইউনিয়নের গুল্টা গ্রামের মৃত জাফর মোল্লার ছেলে।

এদিকে, এ ঘটনায় আদিবাসী অধ্যুষিত তাড়াশ উপজেলায় আদিবাসীদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফজলে আশিক গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষণের অভিযোগ এনে কলেজছাত্রীর বাবা থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক আবু সাইদকে মারধর করায় আহত হয়ে তিনি সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সেখান থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ হেফাজতে ভর্তি রাখা হয়েছে।  ভিকটিমের মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেছে।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) রাত ৯টার দিকে মেয়েকে বাড়িতে রেখে তার বাবা-মা আদিবাসী দম্পতি নিজেদের দোকানে চা বিক্রি করছিলেন। এ সুযোগে গৃহশিক্ষক আবু সাইদ মোল্লা কলেজছাত্রীকে তার বাড়িতে পড়াতে আসেন এবং তাকে একা পেয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করেন।

পরে ভিকটিমের চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে তাকে আটক করে মারধর করেন। পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় শুক্রবার (১৯ মার্চ) কলেজছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে তাড়াশ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *