ফরিদপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

ফরিদপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

জাতীয় সারাবাংলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : ফরিদপুরের সালথা উপজেলার মাঝারদিয়া ইউনিয়নের কুমারপট্টি গ্রামে প্রভাব বিস্তার ও গ্রাম্য দলাদলকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ৬ পুলিশ সদস্যসহ অন্তত অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (০৭ জানুয়ারি) এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ সময় অন্তত পাঁচটি বসতঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ও সাউন্ড গ্রেনেড ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গ্রাম্য দলাদলি ও স্থানীয় প্রভাব বিস্তার নিয়ে কুমারপট্টি গ্রামের এসকেন মাতব্বরের সঙ্গে হারুন মাতব্বরের রিবোধ চলছিল। এই দুই মাতব্বর গ্রাম্য দু’টি গ্রুপের নেতৃত্ব দেন। কোনো সূত্রপাত ছাড়াই সকাল ১০টার দিকে নিজেদের গ্রাম্য দলের শক্তি জানান দিতে উভয়পক্ষের শত শত লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে স্থানীয় মাঠে জড়ো হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলে সংঘর্ষ। এতে আশপাশের কয়েক গ্রামের মানুষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অংশ নেয়। সংঘর্ষের সময় ৫টি বসতঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করে উত্তেজিত সংঘর্ষকারীরা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে সালথা থানার পুলিশ। এ সময় সংঘর্ষকারীদের ইটের আঘাতে ও হামলায় ৬ পুলিশ সদস্য আহত হন। এছাড়া সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হন। আহতরা ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও মুকসেদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মাদ আলী জিন্নাহ জানান, ১৮ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ও দু’টি সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। তবে সংঘর্ষকারীদের ইটের আঘাতে ও হামলায় ৬ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ওই এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *