ফাইজারের চেয়ে ৯ শতাংশ বেশি কার্যকর অক্সফোর্ডের টিকা

আন্তর্জাতিক

ডেস্ক রিপোর্ট: ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকার চেয়ে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকা বেশি কার্যকর বলে স্কটল্যান্ডের এক জরিপে প্রমাণিত হয়েছে। দেশটির টিকা গ্রহণকারী ব্যক্তিদের ওপর জরিপ চালিয়ে দেখা গেছে, যারা ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি টিকা নিয়েছেন তাদের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত গুরুতর অসুস্থতা ৮৫ শতাংশ কমে গেছে এবং অক্সফোর্ড-এ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যে এই হার কমেছে ৯৪ শতাংশ।

করোনাভাইরাসের টিকা যে সত্যিই সংক্রমিতদের ‘হাসপাতালে ভর্তি হবার মত গুরুতর অসুস্থ হওয়া’ বিপুলভাবে কমিয়ে দিতে পারে – তার প্রমাণ পাওয়া গেছে যুক্তরাজ্যের স্কটল্যান্ডে চালানো ওই জরিপে। স্কটল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য বিভাগের চালানো গবেষণায় দেখা যাচ্ছে- প্রথম ডোজ টিকা দেবার চার সপ্তাহ পর করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া চমকপ্রদভাবে কমে গেছে। খবর বিবিসির

ওই জরিপের প্রধান গবেষক অধ্যাপক আজিজ শেখ বলেন, দুটো ভ্যাকসিনই দারুণভাবে কাজ করছে এবং তা ভবিষ্যতের ব্যাপারে আশাবাদী হবার মত।

করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচির ফলে বাস্তব দুনিয়ায় একটা জনগোষ্ঠীর ওপর কি প্রভাব পড়ছে- প্রথমবারের মত তার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে স্কটল্যান্ডের এই জরিপে। যাদের বয়স ৮০ এর বেশি তাদের মধ্যে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা কমেছে ৮১ শতাংশ।

স্কটল্যান্ডে ১৫ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ১১ লাখ ৪০ হাজার লোককে কোভিডের টিকা দেয়া হয়। টিকা-নেয়া এই লোকদের মধ্যে কতজন কোভিডে আক্রান্ত হযে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন- তার সঙ্গে তুলনা করে দেখা হয়, যারা টিকা-নেননি তাদের মধ্যে কতজন হাসপাতালে ভর্তি হলেন।

সব মিলিয়ে দেখা যায় – যারা টিকা নেবার পর চার সপ্তাহ পার করেছেন – তাদের মধ্যে মাত্র ৫৮ জন কোভিড আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। অন্য গ্রুপটি অর্থাৎ টিকা-না-নেয়া লোকদের মধ্যে থেকে ৮ হাজার লোক কোভিড সংক্রমণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

ওই জরিপের প্রধান গবেষক অধ্যাপক আজিজ শেখ বলেন, এই ফলাফল অত্যন্ত চমৎকার এবং দুটো ভ্যাকসিনই দারুণভাবে কাজ করছে।

বিবিসির স্বাস্থ্য সংবাদদাতা লিসা সামার্স বলছেন, বাস্তব জগতে কোভিডের টিকা কেমন কাজ করছে তা জানার জন্য স্কটল্যান্ডের এ জরিপ ছিল বেশ সুবিধাজনক। কারণ এখানকার জনসংখ্যা কম এবং পুরো জনগোষ্ঠীর উপাত্ত দ্রুতগতিতে পাওয়া সম্ভব।

লিসা সামার্স বলছেন, এ জরিপের সীমাবদ্ধতা হচ্ছে, এখানে শুধুমাত্র টিকা নেবার পর “করোনাভাইরাসের সংক্রমণে গুরুতর অসুস্থ হবার সম্ভাবনা কতটা কমলো” সেটাই দেখা হয়েছে। টিকা নেবার পরও আপনি ভাইরাসে সংক্রমিত হতে পারেন কিনা বা অন্যদের মধ্যে রোগ ছড়াতে পারেন কিনা – তা দেখা হয়নি।

একটা নির্দিষ্ট সময় পরে টিকা-গ্রহণকারীদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাবে কিনা – তাও দেখা হয়নি এ জরিপে। কিন্তু আসল কথাটা হলো, মাত্র এক ডোজ টিকা নেবার পরই গ্রহণকারীদের করোনাভাইরাস সংক্রমণে গুরুতর অসুস্থ হবার সম্ভাবনা ৮৫ থেকে ৯৪ শতাংশ পর্যন্ত কমে যাচ্ছে – এটা স্পষ্টভাবেই বেরিয়ে এসেছে এ জরিপে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *