ফুলবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচন

সারাবাংলা

এম এ আজিজ, ময়মনসিংহ অফিস : ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচন আগামী ১৬ জানুয়ারি হতে যাচ্ছে। এবারই প্রথমবারের মত ইভিএমে সব ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হবে। ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণের সংবাদে ভোটারদের মধ্যেও ভোট দিতে নতুন করে আগ্রহ বাড়ছে। ভোটারদের ইভিএম কৌতুহলে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরাও বাড়তি চাপ অনুভব করছে। ফুলবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোটারদের কাছে গেলে সাধারণ ভোটাররা উচ্ছাসে জানান, মেশিনে সুষ্ঠু পদ্ধতিতে ভোট হবে। আমার ভোট, আমি দেবো। অন্য কেউ এসে আমার ভোট দিতে পারবে না। যাকে খুশি তাকেই ভোট দিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করবো। ফুলবাড়িয়া পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডে নারী-পুরুষ ২৩ হাজার ৭৪৩ ভোটার রয়েছে। ১০টি ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দিয়ে আগামী ৫ বছরের জন্য জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন। যারা পৌরসভার উন্নয়নে, নাগরিক সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি ও দৃষ্টিনন্দন পৌরসভা গড়তে সহায়ক ভ‚মিকা পালন করবে। অনগ্রসর জনপদকে দেশের সার্বিক উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় আলোকবর্তিকা হয়ে কাজ করবেন। রাস্তা পাকা-প্রশস্তকরণ, নর্দমা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন, বিদ্যুৎ সুবিধা, যাতায়াত, পৌর বাস টার্মিনাল, বিনোদনসহ সব নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধিতে ব্যাপক ভ‚মিকা রাখবেন। একজন স্বচ্ছ পরিচ্ছন্ন মানুষই হবেন এ পৌরসভার মেয়র। শুধু রাজনীতি দিয়ে নয়, জনগণের পাশে থাকবে এমন ব্যক্তিকেই পৌরবাসী দেখতে চায় আগামীর মেয়র।
স্বাধীন বাংলার রূপকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশ ও তার কন্যা সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে টানা দুই বারের নির্বাচিত বর্তমান মেয়র এবং আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. গোলাম কিবরিয়া ফুলবাড়িয়া পৌরসভাকে আধুনিক, তিলোত্তমা পৌরসভা উপহার দেওয়ার অঙ্গিকারে মাঠে নেমেছেন।
টানা দু’বারে তিনি, নগর উন্নয়র প্রকল্পের আওতায় সাবেক সমাজসেবা অফিসের পেছন থেকে বটতলা পর্যন্ত রাস্তা, উজানের পুল সুরুজের গভীর নলক‚প থেকে ধামর রাস্তা, পেয়াজ মহল রোড, কৃষি ব্যাংক রোড, শাহজালাল রোড, গেঞ্জি মহল কার্পেটিং, চান্দের বাজার সেতুর সংযোগ সড়ক ও হাজী রোড আরসিসি উন্নয়ন, গৌরীপুর রাস্তা কার্পেটিং, শীবগঞ্জ রোড থেকে গোলাম মোস্তফার মহুরীর বাড়ি পর্যন্ত আরসিসি উন্নয়ন, উপজেলা পরিষদের সামনে আরসিসি ড্রেন, জোরবাড়িয়া কোদালিয়া থেকে বালিকা মাদ্রাসা রোড, কাচারী রোড, কেআই সিনিয়র মাদ্রাসা রোড, শীবগঞ্জ রোড থেকে সাহা পাড়া রোড আরসিসি উন্নয়ন, ১নং ওয়ার্ডের আজিজ খলিফা রোড, চান্দের বাজার নদীর পাড় রোড কার্পেটিং ও আরসিসি দ্বারা উন্নয়ন, পল্লী বিদ্যুৎ থেকে মুক্তাগাছা রোড আরসিসি, জালাল কমিশনারের বাড়ির রাস্তা, কেআই সিনিয়র মাদ্রাসা থেকে রশিদ মেম্বারের বাড়ির রাস্তা, পুরাতন গরুহাটা রোড, ভালুকজান আদর্শ বাজার থেকে ফরাজিবাড়ি রাস্তা উন্নয়ন উল্লেখযোগ্য। এ ছাড়া নিজস্ব তহবিলে পৌর ভবন নির্মাণে ৩২ শতক জমি কেনাএবং ২০ শতক জমি সরকারের কাছ থেকে বন্ধোবস্ত নিয়ে ২ কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে আখালিয়া নদীর তীরে পৌর ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

গোলাম কিবরিয়া বলেন, এ পৌরসভাকে তিলোত্তমা পৌরসভার গড়তে চেষ্টা করেছি। প্রতিটি ওয়ার্ডে সমানভাবে উন্নয়নের চেষ্টা করেছি। সাধ্য না থাকায় স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি। সরকারি- বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করেছি। পৌরসভার সবচেয়ে বড় সমস্যা বাস টার্মিনাল। প্রয়োজনীয় জমি বন্ধোবস্তসহ আধুনিক বাস টার্মিনাল নির্মাণ, মিলেনিয়াম ফিলিং স্টেশন থেকে ভালুকজান ইসলাম ফিলিং স্টেশন পর্যন্ত প্রধান সড়কের দুই পাশে নর্দমা ব্যবস্থার অসমাপ্ত কাজের উন্নয়ন, সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় জমি বন্দোবস্তসহ স্যানিটারী ল্যান্ডফিল, ভালুকজান সেতু থেকে শীবগঞ্জ সেতু পর্যন্ত আখালিয়া নদীর উত্তর পাড়ে সিসি ব্লকের মাধ্যমে নদী ভাঙন রোধ, ভালুকজান পালপাড়া থেকে কুশমাইল কড়ইতলা পর্যন্ত যাতায়াতে আখালিয়া নদীর উপর কাঠের সেতু নির্মাণ, হাসপাতালে যাতায়াতে গৌরীপুর ঈদগাহ মাঠ পর্যন্ত সড়ক নির্মাণসহ জনচলাচলের সুবিধার্থে প্রধান সড়কের দুইপাশে ফুটপাত নির্মানসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

যে স্বপ্ন নিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে সেই ধারাবাহিকতায় উন্নয়নের সমান ভাগ ফুলবাড়িয়া পৌরসভাকে দেশের মডেল পৌরসভা হিসেবে উপহার দিতে চান তিনি। সকলের সহযোগিতায় খ শ্রেনির পৌরসভার তালিকা থেকে ক শ্রেনিতে উন্নীত করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

নির্বাচন নিয়ে কথা হলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র গোলাম কিবরিয়া বলেন, আজ যে পৌরসভা দেখছেন তা একদিনের নয়, অনেক কাঠ-খড় পুড়িয়ে গ শ্রেনি থেকে খ শ্রেনিতে উন্নীত করতে পেরেছি। এই উন্নয়ন শুধু আমার একার নয়। পৌরবাসীর সহযোগিতায় এটা সম্ভব হয়েছে। আরও সফলতা আনতে সবার দোয়া ও সর্মথন কামনা করে তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে নৌকাকে ভোট দিন, শেখ হাসিনাকে ভোট দিন, তথা বঙ্গবন্ধুর নৌকায় ভোট দিন। নৌকায় ভোট দিয়ে ফুলবাড়িয়া পৌরসভার দৃশ্যমান উন্নয়নে সহযোগিতা করুন। আগামীতে নির্বাচিত হতে পারলে ফুলবাড়িয়াকে প্রথম শ্রেনির পৌরসভায় উন্নীতসহ সামগ্রিক সুবিধা সমৃদ্ধ উন্নত নগরী হিসাবে গড়ে তোলা হবে। ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানসহ চায়ের আড্ডায় সর্বত্র নির্বাচনী আমেজ বিরাজ করছে। একজন আরেক জনকে নিয়ে দোষারোপের ঝাঁপি মেলে ধরেছেন। কিন্তু বর্তমান মেয়র গোলাম কিবরিয়াকে নিয়ে কোনো বিরূপ মন্তব্য শোনা যায়নি। এ প্রতিবেদক গত দুইদিন ফুলবাড়িয়ায় অনেক চেষ্টা করেও কোনো বিরূপ মন্তব্য নিতে পারেনি পৌরবাসির কাছ থেকে। তবে পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা ও গোলাম কিবরিয়া সেলিম এবং বিএনপি মনোনেীত চাঁন মাহমুদ মেয়র পদে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। বর্তমান মেয়র প্রার্থী ছাড়াও গোলাম মোস্তফা একই দলের প্রার্থী। এ ছাড়া অপরজন বিএনপি মনোনীত। চাঁন মাহমুদ এর আগে দুইবার মেয়র পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করলেও বিজয়ী হতে পারেনি। এবার একই দলের দুইজন এবং গোলাম কিবরিয়া সেলিম মেয়র হিসাবে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করায় চাঁন মাহমুদ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে কিছুটা সম্ভাবনা দেখছেন। অপরদিকে গোলাম মোস্তফাকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কারের প্রস্তাবনা পাঠানোর সংবাদে দিন দিন তার ভোটের পাল্লা দুর্বল হয়ে পড়ছে। ফলে রাজনৈতিক পরিচয়ের পাশাপাশি ব্যক্তি ও পারিবারিক পরিচয় এবং কর্মদক্ষতার বিচারে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী গোলাম কিবরিয়ার পক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে এমনটাই দাবি সাধারণ মানুষের।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *