বরিশালের ২৪ ঘন্টায় দুই হাসপাতালে ২৩ জনের মৃত্যু

জাতীয় লিড ১ সারাবাংলা

ডেস্ক রিপোর্ট : বরিশাল বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় দুই হাসপাতালে আরও ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনার উপসর্গ নিয়ে ১০ জন এবং ১৩ জন করোনায় মারা গেছেন। এ সময়ে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৮৪১ জন। আরটিপিসিআর ল্যাবে শনাক্তের হার ৪৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

সোমবার (২৬ জুলাই) বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক ও শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস জানান, জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রমণ তথ্যে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি শনাক্ত হয়েছে বরিশাল জেলায় ৩৮২ জন। এ পর্যন্ত এই জেলায় আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ১২ হাজার ৬৮৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু না হলেও মোট মারা গেছেন ১৪৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৭ হাজার ৩৩৩ জন।

পটুয়াখালী জেলায় নতুন শনাক্ত হয়েছে ১০৭ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬৬৬ জন। ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু না হলেও মোট মারা গেছেন ৭১ জন। সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৫৭৪ জন।

ভোলায় নতুন ১৩৭ জন শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত হলেন ৩ হাজার ১০৬ জন। ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু না হলেও মোট মারা গেছেন ৩০ জন। সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ২৩০ জন।

পিরোজপুরে নতুন ৭৬ জন শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৬ জন। ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যু নিয়ে মোট মারা গেছেন ৬৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৫১৬ জন।

বরগুনায় নতুন ৭৯ জন শনাক্ত নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫৮৬ জন। ২৪ ঘণ্টায় সাতজনের মৃত্যু নিয়ে মোট মারা গেছেন ৬১ জন। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫৫৬ জন।

ঝালকাঠিতে নতুন ৬০ জন নিয়ে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৭০৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু না হলেও মোট মারা গেছেন ৫৩ জন। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭৫৫ জন।

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ছয়জন করোনায় এবং ১০ জন উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। এ ছাড়া বরগুনা সদর হাসপাতালে সাতজন মারা গেছেন।

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের তথ্য সংরক্ষক জাকারিয়া খান স্বপন জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের আইসোলেশনে ২৩ জন ভর্তি হন। এর মধ্যে উপসর্গ নিয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে ২৮৩ জন চিকিৎসাধীন রোগী আছেন। যার মধ্যে ১১৭ জনের করোনা পজিটিভ, ১৬৬ জন আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় ১৯০ জনের নমুনা আরটি পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করানো হয়েছে। এর মধ্যে ৮৯ জন পজিটিভ ও ৯৬ জন করোনা নেগেটিভ শনাক্ত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগের ২৪ ঘণ্টায় (শনিবার) বিভাগে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছিল ১৫ জনের। আরটিপিসিআর ল্যাবে শনাক্তের হার ছিল ৬২ দশমিক ৩৩ শতাংশ। এ সময়ে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছিল ৭৬৬ জন।

বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালী জেলার দশমিনা উপজেলায় ২০২০ সালের ৯ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। সেই থেকে সোমবার (২৬ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত বিভাগের ছয় জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ২৯ হাজার ৭৫২ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪২৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৯৬৪ জন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *