বরিশালে শেখ হাসিনার ম্যুরালের উদ্বোধন

সারাবাংলা

বরিশাল ব্যুরো
বরিশালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি আবেগঘন ম্যুরালের উদ্বোধন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে গত সোমবার সোয়া ৬টায় আঁতশবাজী উৎসবের মধ্য দিয়ে ফলক উম্মোচন এবং ম্যুরালটির উদ্বোধন করেন বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। চারুকলার অভিজ্ঞ শিল্পিদের নকশা ও বিদেশী দামী টাইলসের নিপুন কারুকাজে বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামের দক্ষিণ দেয়ালে ম্যুরালটি নির্মাণ করে বরিশাল সিটি করর্পোরেশন। ৫০ ফুট উঁচু এবং ৪০ ফুট প্রস্থের ম্যুরালের পেছনে জাতীয় পতাকা ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। উদ্বোধন হওয়া ম্যুরালটি দেশের সর্ববৃহৎ বলে জানান বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস এবং সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, দলীয় নেতাকর্মীসহ ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নেতারা। এর আগে বিকেলে কেন্দ্রিয় শহীদ মিনার পাদদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া মোনাজাতের আয়োজন করেন বরিশাল সিটি করর্পোরেশন। এসময় মোনাজাতে সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ সহ অন্যান্য নেতা কর্মীরা অংশগ্রহন করেন। মোনাজাতে প্রধানমন্ত্রীর সু-স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু এবং দেশ ও জাতীর সাফল্য কামনা করেন। পরে সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ এবং জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, পুলিশ ও জনপ্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ অন্যান্য অতিথিদের সাথে নিয়ে বিসিসি’র পাতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে ম্যুরালটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন শেষে সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়াম, অথচ ভবনটির কোথাও বঙ্গবন্ধুর কোন নামফলক ছিলো না। তিনি দায়িত্ব নেয়ার পর উদ্যোগ নিয়ে বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামে দেশের সর্ববৃহ বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল নির্মাণ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর ৭৪ তম জন্মদিনে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর আবেগঘন ম্যুরালটির শুভ উদ্বোধন করেছেন। ম্যুরালটি বরিশালের একটি ঐতিহাসিক এবং দর্শনীয় স্থানে পরিণত হবে মনে করেন সিটি মেয়র। এসময় তিনি আরো বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা বাচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। বরিশালে যে ম্যুরালটি আমরা উদ্বোধন করেছি, আমার জানা মতে এটি দেশের ইতিহাসে সর্বোবৃহৎ ম্যুরাল। একজন পিতা এবং কন্যার মধ্যে যে স্নেহ-ভালোবাসা রয়েছে তা এই ম্যুরালটির মধ্যে ফুটে উঠেছে। উদ্বোধনের সাথে সাথে আকাশে নানান রংয়ের আতশবাজির ঝলকানিতে আলোকিত হয়ে ওঠে এলাকাটি। সেই সাথে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার নাম সম্বলিত সেøাগানে মুখোরিত হয়ে ওঠে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকা। আগামী ১৬ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামটি ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়ার কথাও বলেন সিটি মেয়র ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *