বলিউড নিয়ে মুখ খুললেন অক্ষয়

বিনোদন

বিনোদন ডেস্ক: অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকে বলিউডের নানা অসঙ্গতি উঠে আসছে। একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য বের হচ্ছে। এ নিয়ে এতদিন চুপ থাকলেও অবশেষ বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার।

শনিবার (৩ অক্টোবর) ইন্সটাগ্রামে এক ভিভিও বার্তায় ‘খিলাড়ি’খ্যাত অক্ষয় বলেন।  ‘আজ দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আপনাদের সঙ্গে কথা বলছি। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে আমি কিছু বিষয় নিয়ে কথা বলতে চাইছি কিন্তু চারিদিকে এত নেতিবাচক আলোচনা যে বুঝতেই পারছিলাম না কি বলব, কীভাবে বলব, কাকে বলব। যদিও আমাদের তারকা বলা হয়, তবে আপনাদের মতো দর্শক ও তাদের ভালোবাসার জন্যই আজকের এই বলিউড তৈরি হয়েছে। আমরা শুধু একটি ইন্ডাস্ট্রি নয়, সিনেমার মাধ্যমে আমরা ভারতের সংস্কৃতি, মূল্যবোধ বিশ্ববাসীর কাছে মেলে ধরি। সিনেমার মাধ্যমে আমাদের দেশের মানুষের ভাবাবেগ তুলে ধরা হয়। এত বছর ধরে আপনারা সেটি বুঝতে পেরেছেন। দুর্নীতি, বেকারত্ব থেকে শুরু করে নানা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সিনেমায় তুলে ধরা হয়েছে। এখন আপনারা অসন্তুষ্ট এবং আমরা সেটি মেনেও নিচ্ছি।’

সুশান্তের মৃত্যুর পর বেশ কিছু সমস্যা সামনে উঠে এসেছে। এতে কষ্ট পেয়েছেন জানিয়ে এই অভিনেতা বলেন, ‘সুশান্তের মৃত্যুর পর বেশ কিছু বিষয় প্রকাশ্যে এসেছে, এটি আপনাদের পাশাপাশি আমাদেরও অনেক কষ্ট দিয়েছে। এর ফলে আমাদের অজান্তেই চারপাশে কি ঘটছে সেদিকে এখন নজর দিতে হবে। সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির খারাপ বিষয়গুলো এখন আমরা ভালোভাবে খেয়াল করব। যেমন: আমরা এখন মাদকের বিষয়ে কথা বলছি। এই সমস্যা বলিউডে নেই তা বলব না। অবশ্যই আছে। যেমনটা অন্য ইন্ডাস্ট্রি ও পেশায় রয়েছে। তার মানে এই নয় ইন্ডাস্ট্রির সবাই এর সঙ্গে সম্পৃক্ত। এটা কীভাবে সম্ভব? মাদকের বিষয়টি আইনের ব্যাপার। আইন প্রয়োজকারী সংস্থা ও আদালত যে পদক্ষেপ নিবেন তা সঠিক বলে আমি আত্মবিশ্বাসী। আমি জানি, সিনেমা জগতের সবাই এই বিষয়ে তদন্তে সহযোগিতা করবে। তবে আপনাদের হাত জোর করে বলছি, পুরো ইন্ডাস্ট্রিকে এক চোখে দেখবেন না। এটা ঠিক নয়।’

বর্তমানে অক্ষয় কুমারের ঝুলিতে বেশ কয়েকটি সিনেমা রয়েছে। মুক্তির অপেক্ষায় তার ‘লক্ষ্মী বোম্ব’ ও ‘সূর্যবংশী’ সিনেমা। সম্প্রতি ‘বেল বটম’ সিনেমার শুটিং শেষ করেছেন এই অভিনেতা। এছাড়া ‘পৃথ্বিরাজ’ ও ‘আতরাঙ্গি রে’ সিনেমায় দেখা যাবে তাকে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *