বাংলাদেশকে পাহাড়সম লক্ষ্য ছুঁড়ে লংকানদের ইনিংস ঘোষণা

খেলাধুলা

স্পোর্টস ডেস্ক: পাল্লেকেলেতে দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশকে পাহাড়সম রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়ে ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলংকা। চতুর্থ দিনে মধ্যাহ্ন বিরতির পর ৯ উইকেটে ১৯৪ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেন লংকান অধিনায়ক। আর তাতেই বাংলাদেশের সামনে জয়ের লক্ষ্যে দাঁড়ায় ৪৩৭ রানের।

বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেট তুলে নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। দুটি উইকেট আছে মেহেদি মিরাজের নামের পাশে আর একটি করে উইকেট নিয়েছেন সাইফ হাসান এবং তাসকিন আহমেদ।

দ্বিতীয় ইনিংসে বড় সংগ্রহ গড়তে না পারলেও প্রথম ইনিংসে পাওয়া ২৪২ রানের লিড লংকানদের বড় লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে সাহায্য করে।

চতুর্থ দিনের শুরুতেই অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসকে তুলে নিয়ে টাইগারদের ভালো শুরু এনে দেন তাইজুল ইসলাম। এরপর মিরাজ আর সাইফও তুলে নেন একটি করে উইকেট কিন্তু তাতেও প্রথম সেশনটা লংকানদেরই বলতে হয়। ঝড়ো গতিতে মধ্যাহ্ন বিরতির আগে পর্যন্ত স্বাগতিকরা ৬ উইকেটে ১৭২ রান তোলে। যেখানে চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনে ৩২ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান। এদিন ৪ দশমিক ৮৪ রেটে রান তোলে লংকানরা।

তৃতীয় দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১৭ রানে দুই উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করে লংকানরা। আর চতুর্থ দিনে ম্যাথিউস ১, করুনারত্নে ১৩ রান নিয়ে দিন শুরু করেন। দিনের ৮ম ওভারে এবং ইনিংসের ১৪তম ওভারে এসে তাইজুল ইসলামের ফ্লাইটেড ডেলিভারিতে পরাস্থ হয়ে ম্যাথিউস বল তুলে দেন ইয়াসির আলী রাব্বির হাতে। আর তাতেই ৩৫ বলে ১২ রানে ম্যাথিউসের ইনিংসের সমাধি হয়।

তবে তাতে লংকানদের রানের চাকা মোটেও থেমে যায়নি। অধিনায়ক করুনারত্নে প্রথম ইনিংসের শতকের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও তুলে নেন অর্ধশতক। ২২তম ওভারের প্রথম বলে তাইজুলের বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে তুলে নেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৬তম অর্ধশতক।

অর্ধশতক হাঁকানোর পর আর বেশি সময় উইকেটে টিকে থাকতে পারেননি লংকান অধিনায়ক। পার্ট টাইম বোলার সাইফ হাসানের ঘূর্নিতে পরাস্ত হন করুনারত্নে। ২৭তম ওভারের শেষ বলে শর্ট লেগে থাকা ইয়াসির আলীর রাব্বির তালুবন্দি হয়ে তিনি যখন ফিরছিলেন তখন লংকানদের স্কোরবোর্ডে রান ১১২। আর লংকান অধিনায়কের ইনিংস থামল ৭৮ বলে ৭টি চার ও একটি ওভার বাউন্ডারিতে ৬৬ রানে।

বাংলাদেশের বিপক্ষের এই সিরিজে করুনারত্নে তিন ইনিংসে ব্যাট হাতে রান সংখ্যা যথাক্রমে ২৪৪, ১৪০ এবং ৬৬। অধিনায়কের ফেরার দুই ওভার পরে মেহেদি মিরাজের বলে শান্তর হাতে বন্দি হন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। আউট হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ৪১ রান।

তবে উইকেট হারালেও রানের চাকা ধীর হতে দেননি লংকান ব্যাটসম্যানরা। টাইগারদের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ২৪২ রানের লিড পায় স্বাগতিকরা। আর তাই তো দ্বিতীয় ইনিংসে রান সংখ্যা বাড়াতেই থাকে তারা। মধ্যাহ্ন বিরতির পর দ্রুতই আরও তিনটি উইকেট হারানোর পরেই ১৯৪ রানে ইনিংস ঘোষণা করে লংকানরা। তাতেই বাংলাদেশকে ৪৩৭ রানের জয়ের লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় স্বাগতিকরা।

এই টেস্ট জয়ের জন্য বাংলাদেশকে রেকর্ড গড়তে হবে। কেননা এর আগে শ্রীলংকার বিপক্ষে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ডটা পাকিস্তানের। ২০১৫ সালে পাল্লেকেলেতে ৩৭৭ রান তাড়া করে জয় ছিনিয়ে নিয়েছিল পাকিস্তান। আর শ্রীলংকার মাটিতে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ডটা স্বাগতিকদের, ২০১৭ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩৮৮ রান তাড়া করে জয় পেয়েছিল লংকানরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড:

দ্বিতীয় ইনিংস:

শ্রীলংকা: ১৯৪/৯ (ডিক্লেয়ার); (করুনারত্নে ৬৬, ধনঞ্জয়া ৪১, নিশাঙ্কা ২৪, ডিকয়েল্লা ২৪); (তাইজুল ১৯.২-২-৭২-৫, মিরাজ ১৪-৩-৬৬-২, তাসকিন ৪-০-২৬-১, সাইফ-৪-০-২২-১)

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *