বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠান ঘিরে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে সতর্কতা

আন্তর্জাতিক

অনলাইন ডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠান বুধবার। এই অনুষ্ঠান ঘিরে সহিংসতার আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্য এবং ডিসট্রিক্ট অব কলম্বিয়া (ডিসি) ছুটির দিনেও সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

গত সপ্তাহের ভয়াবহ দাঙ্গার পুনরাবৃত্তি ঠেকাতে ন্যাশনাল গার্ড বাহিনীকে ওয়াশিংটন ডিসিতে পাঠানো হয়েছে। ট্রাম্প সমর্থকরা ৫০টি রাজ্যের রাজধানীতে সশস্ত্র সমাবেশ করতে পারে বলে হুঁশিয়ারি করেছে এফবিআই।

এই কঠোর নিরাপত্তার মধ্যেই গত শুক্রবার ডিসি থেকে এক অস্ত্রধারী ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার কাছে এমন পরিচয়পত্র পাওয়া গেছে যা সরকারের ইস্যু করা নয়। নিরাপত্তা চৌকিতে তল্লাশি চালানোর সময় ওই ব্যক্তির কাছ থেকে অন্তত একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও ৫০৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। খবর বিবিসির

তবে ওয়েসলে অ্যালেন বিলার নামে ওই ব্যক্তিকে পরে পুলিশি হেফাজত থেকে মুক্তি দেওয়া হয় এবং ওয়াশিংটন পোস্টকে জানানো হয় যে, ওয়াশিংটনে আগ্নেয়াস্ত্র আনার তার কোন উদ্দেশ্য ছিল না, তিনি জানিয়েছেন যে তিনি একটি বেসরকারি সুরক্ষা সংস্থার সাথে কাজ করতেন।

তিনি বলেছেন, ‘ডিসিতে হারিয়ে যাওয়ার পরে আমি একটি চৌকিতে পৌঁছাই কারণ আমি গ্রামের মানুষ। আমি তাদেরকে অভিষেক অনুষ্ঠানের ব্যাজটি দেখাই যেটা আমাকে দেয়া হয়েছিল।’

কর্তৃপক্ষ ওয়াশিংটনে নিরাপত্তা জোরদার করার মধ্যেই এই আটকের ঘটনা ঘটলো। এছাড়া রাজধানী থেকে কয়েক মাইল দূর পর্যন্ত বহু রাস্তা কংক্রিটের ব্যারিকেড এবং ধাতব বেড়া দিয়ে আটকে দেয়া হয়েছে।

অভিষেক অনুষ্ঠানে যে ন্যাশনাল মলে হাজার হাজার মানুষের সমাগম হতো, এই স্থানটি সিক্রেট সার্ভিসের অনুরোধে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এই সংস্থাটি মার্কিন প্রেসিডেন্টের সুরক্ষায় বিশেষভাবে কাজ করে।

বাইডেনের দল ইতোমধ্যে আমেরিকানদের বলেছেন, তারা যেন কোভিড ১৯ মহামারির বিষয়টি মাথায় রেখে দেশটির রাজধানীতে ভ্রমণ এড়িয়ে চলেন। স্থানীয় কর্মকর্তারাও বলছেন, মানুষের উচিৎ হবে এই অভিষেক অনুষ্ঠান আলাদাভাবে দেখা।

রবিবার বিক্ষোভ হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। কারণ ট্রাম্পপন্থী ও ডানপন্থী অনলাইন নেটওয়ার্কগুলোর পোস্টে এই দিনেই সশস্ত্র বিক্ষোভের ডাক দেয়া হয়েছে। পরে কঠোর নিরাপত্তার দিকটি উল্লেখ করে কিছু মিলিশিয়া তাদের অনুসারীদের উপস্থিত না হওয়ার জন্য বলেছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথম মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দুই বার অভিশংসনের মুখে পড়ার মধ্যেই এমন ঘটনা ঘটলো। বিক্ষোভকারীদের উস্কানি দেয়ার অভিযোগে তিনি এখন সিনেটের বিচারের মুখোমুখি। গত ৬ই জানুয়ারি তার সমর্থকদের ক্যাপিটল হিলে সহিংস অবস্থান নেয়ায় তাকে বিচারের আওতায় আনা হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের জয়কে কংগ্রেসকে অনুমোদন দেয়ার দিনেই এমন ঘটনা ঘটে। কংগ্রেসের ওই অধিবেশন বানচাল করার উদ্দেশ্যে এমন হামলা চালানো হয়।

ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে হামলার ঘটনায় এ পর্যন্ত কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সর্বশেষ তথ্যমতে বেকড আলাস্কা নামে পরিচিত ডানপন্থী মিডিয়া ব্যক্তিত্বকে গ্রেফতার করা হয় যার আসল নাম অ্যান্থাইম জোসেফ জিওনেট। তাকে শুক্রবার টেক্সাসের হিউস্টন থেকে গ্রেফতার করা হয় এবং ক্যাপিটলে সহিংস প্রবেশ ও বিশৃঙ্খল আচরণসহ দুটি অপরাধের অভিযোগ আনা হয়।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *