বাগাতিপাড়ায় বৃষ্টির জলে ডুবে গেছে ধান ক্ষেত

সারাবাংলা

আবুল কালাম, বাগাতিপাড়া থেকে
সপ্তাহজুড়ে টানা ভারী বৃষ্টিতে নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া উপজেলার হাটগোবিন্দপুর ও হিজলী মৌজার ১৫০ বিঘা জমির রোপা আমন ধান ডুবে যায়। এতে উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের নিচু অঞ্চলের সব আমন ক্ষেত জলে ডুবে যায়। টানা ৫/৬ দিন জলে যুবে থাকায় মধ্য বয়স্ক আমনের চারা গাছ পচে নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। যাব মধ্যে তুলনামুলক উঁচু অঞ্চলের আমন ক্ষেতের চারা গাঠ দেখা গেলেও নিম্নাঞ্চলের অধিকাংশ ধান ক্ষেত এখনো জলে ডুবে রয়েছে। ইতোমধ্যে কিছু ক্ষেতের আমনের চারা গাছ পচে নষ্ট হয়েছে। এভাবে টানা দীর্ঘ সময় জলে ডুবে থাকলেও বাকি আমন ক্ষেত পচে নষ্ট হওয়ার শঙ্কায় চিন্তিত হয়ে পড়েছে উপজেলার চাষিরা।
শুধু জলে ডুবেই ক্ষতি হচ্ছে না। নিচু অঞ্চলের অনেক আমন ক্ষেতে কচুরিপানা ও নানান ধরনের আগাছা ভেসে এসেছে। ফলে জল কমতে শুরু করলে এসব ক্ষেতের পরিচর্যা করতেও দীর্ঘ সময় লাগবে। একই সঙ্গে উৎপাদন খরচেও বেড়ে যাবে। এছাড়াও ক্ষেতের অনেক চারাগাছ পচে নষ্ট হওয়ায় আমনের উৎপাদন কমে যাওয়ার শঙ্কা করছেন চাষিরা।
একই এলাকার হাটগোবিন্দপুর গ্রামের মোঃ মাসুদুর রহমান জানান, অনেক টাকা খরচ করে রোপন করা আমন ধানের ক্ষেত জলে ডুবে যাচ্ছে। বৃষ্টির জলের সঙ্গে ভেসে আসা কচুরিপানাসহ নানান জাতের আবর্জনা জমিতে ভিড় করছে। দ্রুত জল নেমে গেলে আবর্জনা পরিষ্কর করলে কিছু রক্ষা করা সম্ভব হবে। তবে জল ধীর গতিতে নেমে যাওয়া এবং বৃষ্টি অব্যাহত থাকায় শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন কৃষকরা। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোমরেজ আলী জানান, চলতি বছর উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে রোপা আমন করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩০০ বিঘা রোপা আমন ডুবে গেছে। এ ব্যাপারে জল নিষ্কশনের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর হাটগোবিন্দপুর হিজলী গ্রামের মাসুদুর রহমান একটি আবেদন করেছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *