বাগেরহাটে গরু চুরির দায়ে আটক ৩

সারাবাংলা

বাগেরহাট প্রতিনিধি:
বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার পিংগুড়িয়া এলাকা থেকে গরু চোর সন্দেহে কসাইয়ের ছেলেসহ ৩ জনকে আটক করে থানা পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসি। শনিবার ভোর রাতে তাদের আটক করে পুলিশে দিলেও এদিন দুপুর পর্যন্ত থানা পুলিশ তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করছিল আসলে এরা গরু চুরি করতে গিয়েছিল কি না? অথচ গোয়ালঘর থেকে গরু চুরি করার খবর গতকাল শনিবার মধ্য রাত আড়াইটার দিকে মসজিদে মাইকিং করে এলাকাবাসি জড়ো হয়। ধাওয়া দিয়ে ওই রাতেই ৩ জনকে আটক করে। তাদের ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেলও আটক করে থানা পুলিশে দেয়। আটককৃতরা হচ্চে মোরেলগঞ্জ উপজেলার দৈব্যজ্ঞহাটি নুরুল্লাহপুর গ্রামের সেকেন্দার আলী হাওলাদার ওরফে কসাই সেকেন্দারের ছেলে মিজানুর রহমান হাওলাদার (৩৬), একই এলাকার নজরুল সেখের ছেলে রাসেল সেখ (৩৪) ও পার্শ্ববর্তী খালকুলা গ্রামের আব্দুল কাদের শেখের ছেলে শাহীন শেখ (২০)। বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসি জানায়, রাত আড়াইটার দিকে মোরেলগঞ্জ দৈবজ্ঞ্যহাটি সীমান্ত সংলগ্ন কচুয়া উপজেলার যশোরদি গ্রামের আবু সরদারের বাড়ীর গোয়াল ঘর থেকে ৩ টি গরু চুরি করে নিতে গেলে গরু মালিক টের পেয়ে যায়। চোরের ভয়ে নিজে বের না হয়ে মোবাইলে সকলকে জানায় এবং ওই সময়েই স্থানীয় মসজিদের মাইকে প্রচার করা হয় গরু এসেছে। এ সময় চোরেরা গরু রেখে পালাতে গেলে লোকজন জড়ো হয়ে ধাওয়া দিয়ে কচুয়ার বাধাল ইউনিয়নের পিংগুড়িয়া এলাকা থেকে ৩ জনকেই আটক করে। এলাকাবাসি বলছে রাসেলের মটরসাইকেল নিয়ে এরা ওই রাতে গরু চুরি করতে যায়। এ বিষয়ে বাধাল ইউপি চেয়ারম্যান নকীব ফয়সাল অহিদ বলেন, ওই রাতে অন্য এলাকা থেকে গরু চুরি করতে এসে জনতার হাতে ৩ জন ধরা পড়েছে। পরে এদের কে আমি নিজেই থানা পুলিশ সোপর্দ করেছি। এলাকা থেকে একের পর এক গরু চুরি হওয়ায় গরু মালিরা রাতে ঠিকমত ঘুমাতে পারে না। এ ঘটনায় কচুয়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম শনিবার দুপুরে জানান, এলাকাবাসি ৩ জন কে চোর সন্দেহে আটক করে থানায় দিয়েছে। এখনও জিজ্ঞাসাবাদ করি নাই। তাই এখনই এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলা যাচ্ছে না।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *