বাগেরহাটে যুবককে নির্যাতন

সারাবাংলা

পাঁচ দিনেও আসামিদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ
বাগেরহাট প্রতিনিধি:
বাগেরহাটের ক্রাইম জোন হিসেবে আলোচিত মোরেলগঞ্জ উপজেলায় একটি মোবাইল ফোন চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে আশিক জোমাদ্দার (২২) নামে এক যুবককে হাত পা বেঁধে মধ্য যুগীয়ভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত স্থানীয় ইউপি সদস্য ও চিহ্নিত সন্ত্রাসীসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মোড়েলগঞ্জ থানায় মামলা হলেও পুলিশ কোন আসামি কে গ্রেফতার করতে পারে নাই। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সকালে মোরেলগঞ্জ উপজেলার চিংড়াখালী ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের বড় জামুয়া গ্রামে ওই যুবককে নির্যাতন করে ওই জনপ্রতিনিধি ও তার সহযোগিরা। যা মোবাইলে ধারন করা ছবি ইন্টানেটে ভাইরাল হয়। এ খবর পেয়ে ওইদিনই পুলিশ আশিককে উদ্ধার করে মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরদিন ২৫ ফেব্রুয়ারি নির্যাতনের শিকার আশিক বাদী হয়ে মোরেলগঞ্জ থানায় ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সোহেল খানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। নির্যাতনের ঘটনার ৪দি পার হলেও পুলিশ জড়িতদের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এদিকে, আহত আশিক এখন কোথায় চিকিৎসা নিচ্ছে তা পুলিশ নিশ্চিত করে বলতে পারছে না। আহত আশিক জমাদ্দারের বাড়ি পাশ^বর্তি পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানি উপজেলার চরানি পত্তাশি গ্রামে। মামলার বরাত দিয়ে বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মীর মোঃ সাফিন মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি পাশ^বর্তি পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানি উপজেলার চরনি পত্তাশি গ্রামে আশিক জোমাদ্দারকে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে বাড়ি থেকে ডেকে এনে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার চিংড়াখালী ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের বড় জামুয়া গ্রামে হাত পা বেঁধে নিযাতন করে ইউপি সদস্য সোহেল খান ও তার সহযোগিরা। এই নির্যাতনের দৃশ্য মোবাইলফোনে ভিডিও ধারন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয়। নির্যাতনের এই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতনের শিকার আশিককে উদ্ধার করে এনে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। এই ঘটনায় আশিক বাদী হয়ে মোরেলগঞ্জ থানায় ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সোহেল খানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। ঘটনার পর নির্যাতনকারি ইউপি সদস্য সোহেল খান ও তার সহযোগিরা গাঁ ঢাকা দেয়ায় তাদের কাউকে এখনো গ্রেফতার করা যায়নি। তাদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে বলে এই পুলিশ কর্মকর্তা দাবি করেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *