বাজারে হঠাৎ অস্বস্তি : পর্যাপ্ত সরবরাহ, তবুও সবজির দাম বেড়েছে

সারাবাংলা

মাহফুজ ইসলাম সবুজ, বরিশাল ব্যুরো : শীতের সবজির পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকার পরও বরিশাল নগরীর বাজারগুলোতে সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে সব ধরণের সবজির দাম। ফলে বেশ কিছুদিন ধরে যে সবজির দাম ক্রেতাদের স্বস্তি দিচ্ছিল, তাই হঠাৎ করে অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বরিশালের বাজারগুলোতে। গতকাল শুক্রবার চৌমাথা বাজার, বটতলা বাজার, নতুন বাজার, বাংলা বাজার সহ নগরীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এবং ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া যায়। এসময় ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, সরবরাহ কম হওয়ায় সবজির দাম কিছুটা বেড়েছে। তবে বাজারে কোনো সবজির কমতি নেই এমনটাই জানান ক্রেতারা। টমেটো, শিম, লাউ, কাঁচা-পাকা মিষ্টি কুমড়া, ফুলকপি, বাঁধাকপি, ওলকপি (শালগম), পেঁয়াজ কলি, বেগুন, মুলা, লাল শাক, পালং শাক, লাউ শাক সবকিছুই বাজারে ভরপুর। শীতের অন্যতম প্রধান সবজি ফুলকপি বেশ কিছুদিন ধরেই প্রতি কেজি ১৫ থেকে ২০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছিল। সেই ফুলকপির দাম গত শুক্রবার বেড়ে হয়েছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা। ১৫ থেকে ২০ টাকা দামে বিক্রি হওয়া পাতাকপির দাম বেড়ে হয়েছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা। ২৫ থেকে ৩০ টাকা দামে বিক্রি হওয়া শিমের দাম বেড়ে হয়েছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। আর গাজরের দাম বেড়ে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। দাম বাড়ার তালিকায় রয়েছে শালগম, মুলা, টমেটো, বেগুনও। ১০ থেকে ১৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া শালগমের দাম বেড়ে হয়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা। বেগুনের দাম এক লাফে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা কেজি, যা গত সপ্তাহে ছিল ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি। মুলার দাম ১৫ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজি। ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া টমেটোর দাম বেড়ে হয়েছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। ঠান্ডা তরকারি হিসেবে পরিচিত লাউয়ের দামও বেশ বেড়েছে। গত সপ্তাহে ৩০ থেকে ৪০ টাকা পিস বিক্রি হওয়া লাউয়ের দাম বেড়ে হয়েছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা। সবজির এমন দামে ক্রেতাদের মধ্যে কিছুটা অস্বস্তি বিরাজ করছে। বটতলা বাজারে সবজি কিনতে আসা মো. সামছু বলেন, এখন শীতের সবজির ভর মৌসুম। সেই হিসাবে সব সবজিরই দাম কম থাকার কথা। কিন্তু বাজারে এসে দেখি গত কয়েকদিনের তুলনায় শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে সব ধরনের সবজির দাম কেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা বেড়েছে।
সবজির দাম বাড়ার বিষয়ে বটতলা বাজারের ব্যবসায়ী কামরুল হোসেন বলেন, শীতের সময় সব সবজির দামই কম থাকে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই সবজির দাম বেশ কমছিল। এমন অবস্থায় গত শুক্রবার মোকামে সরবরাহ কম হওয়ার কারণে সবজির দাম কিছুটা বেড়েছে। আবার সরবরাহ বাড়লে খুচরা বাজারে দাম কমে যাবে বলে জানান তিনি। অন্যদিকে কমতির দিকে রয়েছে মাছের দাম। বাজারে প্রতি কেজি চিংড়ি বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকায়, কোরাল ৪৫০ থেকে ৫৫০, পোমা ১৫০ থেকে ২৫০ টাকা, রুই ২০০ থেকে ২৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১২০ থেকে ১৫০ টাকা। তবে মাছের আকার ও বাজারভেদে তারতম্য লক্ষ্য করা যায় মাছের দামেও। এ ছাড়া গত সপ্তাহের মতোই আছে মাংসের মূল্য তালিকা। ব্রয়লার মুরগি কেজি ১৩০ টাকা, সোনালি মুরগি ১৯০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। অন্যদিকে গরুর মাংস ৫৫০ টাকা খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭৫০-৮০০ টাকায়। সঙ্গে বাড়ছে চালের দামও কেজি প্রতি বেড়েছে ২৮ বালাম ৩ টাকা এবং মিনিকেট কেজি প্রতি ৭ টাকা।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *