বার্সেলোনাকে হারিয়ে বেনফিকার প্রথম জয়

খেলাধুলা

ডেস্ক রিপোর্ট: সময় ভালো যাচ্ছে না স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার। আর তার প্রভাব পড়েছে পয়েন্ট টেবিলেও, ডোনাল্ড কোম্যানের দলটির অবস্থান এখন তলানিতে। বায়ার্ন মিউনিখের পর একই ব্যবধানে বেনফিকার কাছে হারল বার্সা। ১৯৬১ সালের পর ইউরোপসেরার মঞ্চে বার্সার বিপক্ষে এটাই পর্তুগালের ক্লাব বেনফিকার প্রথম জয়।

বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বুধবার রাতে ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে ৩-০ গোলে হেরেছে বার্সেলোনা। জোড়া করে গোল করে পর্তুগিজ ক্লাবটির নায়ক ডারউইন নুনেজ। মৌসুমের প্রথম ম্যাচে একই ব্যবধানে হেরেছিল বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে।

বল দখলে এগিয়ে থাকা বার্সেলোনা অবশ্য পরীক্ষা নিতে পারেনি বেনফিকা গোলরক্ষকের। সফরকারীদের আট শটের মাত্র একটা ছিল লক্ষ্যে। স্বাগতিকদের ১২ শটের ছয়টি ছিল লক্ষ্যে, এর অর্ধেক যায় জালে। এমনিতেই সমালোচনার মধ্যে আছেন বার্সা কোচ, এবার এই হারে তার চাপ আরো বাড়ল। কেউ কেউ বার্সায় তার শেষ দেখে ফেলেছেন।

জয়ে ২ ম্যাচ থেকে ৪ পয়েন্ট নিয়ে বেনফিকা আছে পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় স্থানে। আর ২ ম্যাচ থেকে কোনো পয়েন্ট সংগ্রহ না করতে পারা বার্সেলোনা আছে তলানিতে। ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে বায়ার্ন মিউনিখ।

এদিন ম্যাচ শুরুর তিন মিনিটের মাথায় বেনফিকাকে এগিয়ে দেন উরুগুয়ান ফরোয়ার্ড নুনেজ। জুলিয়ান ওয়াইগেলের এসিস্টে ডিফেন্ডার এরিক গার্সিয়াকে অনায়াসেই পরাস্ত করেন তিনি। ১০ মিনিটের মাথায় অবশ্য সমতায় ফিরতে পারতো স্প্যানিশ জায়ান্টরা। তবে অনেকটা ফাঁকা গোলে বল জড়াতে ব্যর্থ হন বার্সা ফরোয়ার্ড লুক ডি জং।

প্রথমার্ধের সিংহভাগ সময়ে বার্সেলোনা বল দখলের লড়াইে বেশ খানিকটা এগিয়ে থাকলেও বলার মতো তেমন সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। দ্বিতীয়ার্ধে যখন মনে হচ্ছিল বার্সা ম্যাচে নিজেদের দখল বজায় রেখে ফিরে আসতে পারে, ঠিক তখনই ব্যবধান বাড়ায় পর্তুগিজ ক্লাবটি।

৬৯ মিনিটের মাথায় রাফা সিলভা বেনফিকার ব্যবধান দ্বিগুন করেন। ম্যাচের ৭৭ মিনিটে বক্সের মধ্যে সার্জিনিও ডেস্টের হ্যান্ডবলের সুবাদে পেনাল্টি পায় বেনফিকা। নিজের দ্বিতীয় গোলটি করতে কোন ভুল করেননি নুনেজ। ৩-০ এগিয়ে ম্যাচের রাশ নিজেদের হাতে নিয়ে নেয় বেনফিকা। ৮৭ মিনিটে এরিক গার্সিয়া লাল কার্ড দেখায় বার্সা ১০ জনে নেমে গেলেও আর কোন গোল হয়নি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *