`বায়ুদূষণ করোনা হওয়ার আশঙ্কা বাড়িয়ে দিচ্ছে’

জাতীয়

অনলাইন ডেস্ক : কার্ডও ভাসকুলার রিসার্চ নামক এক ম্যাগাজিনে প্রকাশিত সমীক্ষা বলছে, বায়ুদূষণ করোনা হওয়ার আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয় ১৫ শতাংশ পর্যন্ত। গোটা বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতির বাড়ার অন্যতম কারণ এই বায়ুদূষণ। ইতালি ও চীনের ওপর করা এক সমীক্ষায় দেখা গেছে শীতকালে ক্রমাগত বেড়েছে করোনার সংক্রমণ। আর ভারতে বায়ুদূষণ সেই পরিমাণকে আরও বাড়িয়ে দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরাও।
ইউরোপে এর হার প্রায় ১৯ শতাংশ, উত্তর আমেরিকায় ১৭ শতাংশ ও পূর্ব এশিয়ায় বায়ুদূষণের ফলে করোনা হওয়ার হার ২৭ শতাংশ।
সমীক্ষার ভয়েস রেকর্ডার সূত্রে জানা গেছে, যদি সব এলাকায় বায়ুদূষণের পরিমাণ তুলনামূলকভাবে কম, সেখানে করোনা ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা বেশ কম। বিশেষ করে যেখানে জ্বালানির মাধ্যমে বায়ুদূষণের হার কম, সেখানে করোনা কম ছড়িয়েছে বলে সমীক্ষা জানিয়েছে। শীতকালে বাড়ে বায়ুদূষণের হার।
ফলে আসন্ন শীতকালে বাড়তে পারে করোনা সংক্রমণ। শুধু তা-ই নয়, ক্রমশ বেড়ে চলা বায়ুদূষণও করোনার প্রকোপ বাড়াতে পারে বলে সমীক্ষা জানিয়েছে।
রিসার্চ বলছে, প্লাজমা থেরাপি মৃত্যুর হার কমাতে পারেনি। এই কারণে শীতকালে মাস্ক পরার অভ্যাসটা আরও জোরদার করতে হবে। বারবার হাত ধুতে হবে। সামাজিক দূরত্ব অবশ্যই মেনে চলতে হবে।
গবেষকরা বলছেন, গরমকালে অ্যারোসোলের ছোট ছোট কণার কারণে এই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছিল, শীতকালে রেসপিরেটরি ড্রপলেট সরাসরি সম্পর্কে আসার ফলে করোনা আরও বাড়তে পারে।
চেক রিপাবলিকে বায়ুদূষণ থেকে করোনা হওয়ার হার ২৯ শতাংশ, চীনে ২৭ শতাংশ, জার্মানিতে ২৬ শতাংশ, সুইজারল্যান্ডে ২২ শতাংশ, বেলজিয়ামে ২১ শতাংশ, নেদারল্যান্ডে ১৯ শতাংশ, ফ্রান্সে ১৮ শতাংশ, সুইডেন ১৬ শতাংশ, ১৫ শতাংশ ইতালিতে, ব্রিটেনে ১৪ শতাংশ, ব্রাজিলে ১২ শতাংশ, পর্তুগালে ১১ শতাংশ, আয়ারল্যান্ডে ৮ শতাংশ, ইসরায়েলে ৬ শতাংশ, অস্ট্রেলিয়াতে ৩ শতাংশ, নিউজিল্যান্ডে ১ শতাংশ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *