বিধবাভাতা কেড়ে নিলেন ইউপি সদস‌্য

সারাবাংলা

দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরের হিলির বোয়ালদাড় ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের পাইকপাড়া গ্রামের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য ফারুখ আকন্দের বিরুদ্ধে বিধবাভাতা কার্ডের টাকা কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ,  টাকা ছাড়া কোনো কার্ড করে দেন না এই ইউপি সদস্য। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ করার পরেও ইউপি সদস্য টাকা ফেরত না দিয়ে ভাতা ভোগীদের প্রতিনিয়ত হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছেন তিনি।

অভিযোগকারী পাইকপাড়া গ্রামের ফাইমা বেওয়া বলেন, ‘ তিন সন্তান রেখে আমার স্বামী গত ৫ মাস আগে মারা গেছেন। আমার সংসারে স্বামী ছাড়া উপার্জনের কেউ নেই। মাঠে আবাদি কোনো জমিও নেই। স্বামী মারা যাওয়ার পর মেম্বার ফারুখকে একটা বিধবাভাতা কার্ড করে দেওয়ার জন্য অনেক অনুরোধ করি।  তিনি ৩ হাজার টাকার বিনিময়ে একটা কার্ড করে দেন। এরপর গত মঙ্গলবার বিধবাভাতা কার্ডের প্রথম টাকা উত্তোলন করি। তখন এই মেম্বার আমার নিকট থেকে আরও ২ হাজার টাকা নেন। শেষে আমি নিরুপায় হয়ে হাকিমপুর (হিলি) উপজেলার ইউএনও’র নিকট লিখিত অভিযোগ করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘উপজেলায় অভিযোগ দেবার পর মেম্বার আমাদের বিভিন্নভাবে ভয়-ভীতি আর হুমকি দিচ্ছেন। আমরা অনেক ভয়ে আছি।

পাইকপাড়া গ্রামের আরও এক ভুক্তভোগী শেফালী বেওয়া বলেন, ‘আমার স্বামী মারা গেছেন পাঁচ বছর আগে। ছেলেকে নিয়ে খুব কষ্টে সংসার চলছিল। এ অবস্থায় বিধবাভাতা কার্ডের জন‌্য মেম্বার ফারুখকে অনুরোধ করি। তিনি ৩ হাজার টাকা লাগবে বলে জানান। সেসময় আমার হাতে টাকা ছিল না বলে পরে টাকা দিতে চেয়েছিলাম। এরপর মেম্বার ফারুক  আমাকে কার্ড করে দেন। পরে গত মঙ্গলবার প্রথম টাকা উত্তোলনের সময় তিনি আমার নিকট থেকে ৩ হাজার টাকা কেটে রাখেন।

একই গ্রামের ৬৮ বছর বয়সি বৃদ্ধা লাইলী বেগম অভিযোগ করে রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘একটা বয়স্কভাতা কার্ড করে দেওয়ার জন্য মেম্বার ফারুখকে প্রায় দেড় বছর আগে ২ হাজার টাকা দিয়েছিলাম। টাকা নিয়েও আজ পর্যন্ত মেম্বার কোনো কার্ড করে দেননি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *