বিধি লঙ্ঘন করায় হোয়াটসঅ্যাপকে ২,২৭৭ কোটি টাকা জরিমানা

তথ্য প্রযুক্তি

ডেস্ক রিপোর্ট : ইউরোপীয় ইউনিয়নের তথ্য সুরক্ষা বিধি লঙ্ঘন করায় স্মার্ট ডিভাইস মেসেজিং অ্যাপ ‘হোয়াটসঅ্যাপ’কে ২ হাজার ২৭৭ কোটি ৩৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা (২২৫ মিলিয়ন ইউরো/ ১৯৩ মিলিয়ন পাউন্ড) জরিমানা করা হয়েছে।

আয়ারল্যান্ডের ‘প্রাইভেসি ওয়াচডগ’ এর অনুসন্ধানে দেখা গেছে, কোম্পানিটি মূল সংস্থা ফেসবুকের মালিকানাধীন অন্যান্য সংস্থার সাথে তথ্যের স্বচ্ছতার ক্ষেত্রে কঠোর নীতিমালা লঙ্ঘন করছে।

তথ্য সুরক্ষা কমিশন গত বৃহস্পতিবার জানায়, হোয়াটসঅ্যাপকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিয়ম মেনে চলার পাশাপাশি সংস্থাটিকে ‘প্রতিকারমূলক পদক্ষেপ’ নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, জরিমানার পরিমাণ অনেক বেশি এবং তারা এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবে।

এর আগে, জেনারেল ডেটা প্রোটেকশন রেগুলেশন (জিডিপিআর) নামে পরিচিত ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিয়মগুলো কার্যকর হওয়ার পর ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে হোয়াটসঅ্যাপের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়।

এই জরিমানা জিডিআরপি আইনের অধীনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এবং আয়ারল্যান্ড কমিশনের করা সবচেয়ে বেশি। এর আগের নিরাপত্তা লঙ্ঘনের দায়ে টুইটারকে ৪ লাখ ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪০ কোটি ৪৮ লাখ টাকা) জরিমানা করা হয়।

কমিশন জানায়, হোয়াটসঅ্যাপের বিরুদ্ধে অভিযোগটি প্রমাণ করে যে ফেসবুক ব্যবহারকারী এবং যারা কখনও ফেসবুক ব্যবহার করেনি তাদের জন্য জিডিআরপি বিধিমালা অনুসরণ করেছে কিনা। যার মধ্যে কীভাবে হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুকের অন্যান্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে ব্যবহারকারীদের তথ্য কাজে লাগানো হয় তা অন্যতম।

আয়ারল্যান্ডের শহর ডাবলিনে অনেক বড় বড় প্রযুক্তি সংস্থার ইউরোপীয় সদর দপ্তর রয়েছে, ফলে দি আইরিশ ওয়াচডগ ইউরোপীয় ইউনিয়নের তথ্য ও এর গোপনীয়তার প্রধান নিয়ন্ত্রক হিসেবে কাজ করে।

এই বিষয়ে হোয়াটসঅ্যাপ এক বিবৃতিতে জানায়, ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত সেবা ও গোপনীয়তা রক্ষার ক্ষেত্রে তারা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমাদের দেওয়া তথ্যের সত্যতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে আমরা আগের মতোই কাজ করে যাব।

তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নীতিলঙ্ঘনের দায়ে জরিমানা দিতে তারা রাজি নয় বলে জানিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার কথাও জানিয়েছে সংস্থাটি। সূত্র: স্কাই নিউজ

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *