বিশ্বের জনপ্রিয় রাষ্ট্রনেতাদের শীর্ষে নরেন্দ্র মোদি

আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের ডেটা ইন্টেলিজেন্স ফার্ম ‘মর্নিং কলসাল্ট’-এর জরিপে এই চিত্র উঠে এসেছে। শনিবার (৬ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউ।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, মর্নিং কনাসাল্ট নামের কয়েকশ কোটি ডলারের এই সংস্থাটি তথ‌্য বিশ্লেষণের কাজ করে থাকে। প্রতি সপ্তাহে সংস্থাটি বিশ্বের ১৩টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধানদের জনপ্রিয়তাও পরিমাপ করে।

শনিবার মর্নিং কনসাল্ট’র সমীক্ষার ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, এই সপ্তাহে জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে বিশ্বে শীর্ষ স্থানে রয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সমীক্ষায় মোদির অ্যাপ্রুভাল রেটিং ৭০ শতাংশ। অবশ্য ২০১৯ সালে মর্নিং কনসাল্ট যখন থেকে সমীক্ষা শুরু করে তখন থেকেই নরেন্দ্র মোদির অ্যাপ্রুভাল রেটিং ৬০ শতাংশের ওপরেই রয়েছে।

এদিকে জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে মোদির পরই রয়েছেন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট লোপেজ ও’ব্রাদোর। মোদিকে ৭০ শতাংশ মানুষ সমর্থন করেন। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা লোপেজের প্রতি সমর্থন ৬৬ শতাংশ। আগের তুলনায় কিছুটা হলেও সমর্থন বেড়েছে মেক্সিকান প্রেসিডেন্টের।

তৃতীয় স্থানে রয়েছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি। চতুর্থ স্থানে জার্মানির চ‌্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল। বিদায়ী এই চ্যান্সেলরের প্রতি ৫৪ শতাশ মানুষের সমর্থন রয়েছে। ৪৭ শতাংশ মানুষের সমর্থন নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন রয়েছেন পঞ্চম স্থানে।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ৪৫ শতাংশ সমর্থন নিয়ে রয়েছেন ষষ্ঠ স্থানে। অন্যদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ৪৪ শতাংশ মানুষের সমর্থন নিয়ে নেমে গেছেন সপ্তম স্থানে। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত‌্যাহারের সিদ্ধান্তের কারণে বাইডেনের জনসমর্থন কমে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে মর্নিং কনসাল্ট’র সমীক্ষায় ৭০ শতাংশ সমর্থন পাওয়াকে বিশ্বব‌্যাপী ৭০ শতাংশ মানুষ মোদির সরকারের নীতিগুলোকে সমর্থন করছে বলে অনুমান করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, সম্প্রতি জি-২০ সম্মেলন এবং গ্লাসগো জলবায়ু সম্মেলনে যেভাবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনেতাদের সঙ্গে মোদিকে একাত্ম হতে দেখা গেছে তাতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা অনেক বেড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

মার্কিন ডেটা ইন্টেলিজেন্স ফার্ম মর্নিং কনসাল্ট রাজনৈতিক বুদ্ধিমত্তা এবং বর্তমানে ভারত, ইতালি, জাপান, মেক্সিকো, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, দক্ষিণ কোরিয়া, স্পেন, যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি নেতাদের অনুমোদনের রেটিং ট্র্যাক করছে। সাপ্তাহিক ভিত্তিতে ১৩টি দেশের রিপোর্ট দিয়েছে, যার মধ্যে ভারত রয়েছে শীর্ষে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *