বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ১৮ লাখ ৩৪ হাজার, সুস্থ্য ৫ কোটি ৯৬ লাখ

আন্তর্জাতিক জাতীয়

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বে করোনাভাইরাসের এক বছর হলেও কোন ভাবেই যেন নিয়ন্ত্রণে আসছে না বরং নিত্য নতুন রুপে আগমন হচ্ছে করোনা ভাইরাস। প্রতিদিনই নিত্য নতুন রুপে দেখা দিচ্ছে করোনার নতুন রুপ। এ পর্যন্ত সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আট কোটি ৪৩ লাখ এবং মৃতের সংখ্যা ১৮ লাখ ৩৪ হাজার ছাড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত বিশ্বে করোনা থেকে সেরে ওঠা মানুষের সংখ্যা ৫ কোটি ৯৬ লাখ ২৫ হাজার ৬৪১।

গত একদিনে করোনায় নতুন শনাক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৬১ হাজার ১৮৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৯ হাজার ৪৬৪ জনের।

করোনাভাইরাস মহামারির শুরু থেকে বিশ্বের সব দেশ ও অঞ্চলের করোনা সংক্রমণের হালনাগাদ তথ্য সংরক্ষণ করছে ওয়ার্ল্ডোমিটারস নামের একটি ওয়েবসাইট। তাদের সর্বশেষ তথ্য বলছে, শনিবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮ কোটি ৪৩ লাখ ৬৩ হাজার ৫৬৬ জন, মোট মারা গেছেন ১৮ লাখ ৩৪ হাজার ৫১৯ জন।

বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ৬ লাখ ১৭ হাজার ৩৪৬। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৪৪৫ জন।

ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় ভারতের অবস্থান দ্বিতীয়। ভারতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৩ লাখ ৩ হাজার ৪০৯। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৪৯ হাজার ২০৫ জন।

ব্রাজিল আছে তৃতীয় অবস্থানে। ব্রাজিলে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭৭ লাখ ৫৭৮ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৯৫ হাজার ৪৪১ জন।

তালিকায় রাশিয়ার অবস্থান চতুর্থ। ফ্রান্স পঞ্চম। যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ। তুরস্ক সপ্তম। ইতালি অষ্টম। স্পেন নবম। জার্মানি দশম। তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ২৭তম।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চীনে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যু হয় চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি। তবে তার ঘোষণা আসে ১১ জানুয়ারি। চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে।

করোনার প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে ৩০ জানুয়ারি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। গত ২ ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ফিলিপাইনে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *