বিশ্বে প্রায় ১৮ কোটি মানুষের করোনা শনাক্ত

আন্তর্জাতিক লিড ১

ডেস্ক রিপোর্ট: বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসে মৃত্যু ও শনাক্ত বেড়েই চলেছে। সারাবিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও আট হাজার ২২৪ জন মারা গেছেন। একই সময়ে শনাক্ত হয়েছে তিন লাখ ৬৮ হাজার ২৫৪ জন। আর সুস্থ হয়েছেন চার লাখ ১৩ হাজার ২০৩ জন।

বুধবার (২৩ জুন) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিশ্বে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্র এখনো সবার ওপরে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ৪৪ লাখ ৩৪ হাজার ৮০৩ জনের। এর মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ ১৭ হাজার ৮৭৫ জন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৮৮ লাখ ১৭ হাজার ১৩৪ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত তিন কোটি ২৭ হাজার ৮৫০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন তিন লাখ ৯০ হাজার ৬৯১ জন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৮৯ লাখ ৮৭ হাজার ৩১১ জন।

তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত এক কোটি ৮০ লাখ ৫৬ হাজার ৬৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে পাঁচ লাখ চার হাজার ৮৯৭ জনের। আর এক কোটি ৬৩ লাখ ৮৮ হাজার ৮৪৭ জন সুস্থ হয়েছেন।

সংক্রমণ ও মৃত্যুর তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ৩১তম। দেশে এখন পর্যন্ত আট লাখ ৬১ হাজার ১৫০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৩ হাজার ৭০২ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন সাত লাখ ৮৮ হাজার ৩৮৫ জন জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। দেশটিতে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে ধীরে ধীরে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

করোনা প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ৩০ জানুয়ারি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এরপর ২ ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ফিলিপাইনে। ওই বছরেরই ১১ মার্চ করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

করোনা সংক্রমণের শুরুর দিকে ইউরোপ-আমেরিকায় পরিস্থিতি বেশি খারাপ হলেও তা বর্তমানে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বিপরীতে শুরুর দিকে ভালো থাকা ভারত ও বাংলাদেশের মতো দেশগুলোর চিত্র ক্রমান্বয়ে খারাপ হচ্ছে। তবে গত প্রায় দুই সপ্তাহে ভারতে পরিস্থিতির ধারাবাহিক উন্নতি হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *