বুরকিনা ফাসোয়ায় ত্রাণ কার্যক্রমে সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ১১ পুলিশ

আন্তর্জাতিক

ডেস্ক রিপোর্ট: পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোয় সন্ত্রাসীদের হামলায় কমপক্ষে ১১ জন পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। এছাড়া হামলার পর থেকে নিখোঁজ রয়েছেন আরও ৪ পুলিশ সদস্য। দেশটির সংঘর্ষ-পীড়িত উত্তরাঞ্চলে এই ঘটনা ঘটে বলে মঙ্গলবার (২২ জুন) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

মঙ্গলবার দেওয়া এক বিবৃতিতে বুরকিনা ফাসোর নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী ওউসেইনি কমপাউরি জানিয়েছেন, দেশের উত্তরাঞ্চলীয় ইয়িরগোউ শহরে ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করার সময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। ইয়িরগোউ শহরে সাম্প্রতিক সময়ে সহিংসতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

কমপাউরি আর বলেন, ‘হামলার পর নিখোঁজ পুলিশ সদস্যদের উদ্ধারে ও অভিযুক্তদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে সামরিক বাহিনী।’

অবশ্য হামলার ব্যাপারে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো গোষ্ঠী দায় স্বীকার করেনি।

২০১৫ সাল থেকে সশস্ত্র মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলোর ক্রমবর্ধমান হামলা মোকাবিলায় রীতিমতো সংগ্রাম করছে বুরকিনা ফাসো। সশস্ত্র এসব গোষ্ঠীগুলোর বেশিরভাগই জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়দা এবং আইএস’র সঙ্গে সম্পৃক্ত।

উগ্রবাদী এসব গোষ্ঠীর হামলায় দেশটিতে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১ হাজার ৪০০ মানুষ নিহত হয়েছেন। ২০১৫ সালে দেশটির উত্তরে অবস্থিত মালি সীমান্তে প্রথম এ ধরনের হামলা শুরু হয়। পরে সেটা সারা দেশেই ছড়িয়ে পড়ে। ফলে পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশটিতে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র মানবিক সংকটের।

সূত্র: আলজাজিরা

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *