বৃষ্টি দিয়ে সকাল শুরু, ভোগান্তিতে অফিসগামী মানুষ

জাতীয়

ডেস্ক রিপোর্ট: সাত সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় তুমুল বৃষ্টি হয়েছে। মঙ্গলবার (১ জুন) সকাল ৬টার পর থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অব্যাহত আছে। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি দুপুর পর্যন্ত চলতে পারে।

এদিকে সকাল থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। ভোগান্তিতে পড়েছেন অফিসগামী মানুষ। সড়কে পানি জমে থাকায় এবং গণপরিবহন ও রিকশা সংকটে অনেকেরই অফিসযাত্রা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। বৃষ্টি ও হাঁটু পানির মধ্যেই অনেককে অফিসের উদ্দেশে যাত্রা করতে দেখা গেছে।

অন্যদিকে সকাল থেকে আকাশ অন্ধকারাচ্ছন্ন থাকায় হেডলাইট জালিয়ে সড়কে গাড়ি চলতে দেখা গেছে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, কোথাও কোথাও আজ সারাদিনই বৃষ্টির দেখা মিলতে পারে। এছাড়া ঝোড়ো হাওয়াসহ বজ্রবৃষ্টির আভাস রয়েছে। এ কারণে নদীবন্দরকে ১ নং সংকেত দেখানো হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ৮টায় আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ মো. আরিফ হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, থেমে থেমে রাজধানীতে  দুপুর পর্যন্ত বৃষ্টির হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানেও বৃষ্টি হচ্ছে, তা অব্যাহত থাকতে পারে।

আবহাওয়া অফিস জানায়, আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

আগামী ২৪ ঘণ্টা সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। আর রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে। পাঁচ দিনের বর্ধিত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমীবায়ু টেকনাফ উপকূল পর্যন্ত অগ্রসর হতে পারে।

এদিকে রংপুর, দিনাজপুর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ফরিদপুর, ঢাকা, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চলের উপর দিয়ে পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিমি. বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ১ নম্বর সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে রাঙ্গামাটিতে ৩৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে নেত্রকোনায় ৯৭ মিলি.। এছাড়া ঢাকা, সীতাকুন্ড, রংপুর, ডিমলা, সাতক্ষীরা, বরিশালসহ বিভিন্ন এলাকায় মাঝারি বৃষ্টিপাত হয়েছে।

আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়েছে, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *