বোরো ধান রোপণে ব্যস্ত কৃষক

সারাবাংলা

উবায়দুল্লাহ রুমি, ঈশ্বরগঞ্জ থেকে:
হিম শীতল হাওয়া সেই সঙ্গে হাড়কাঁপানো শীত ও ঘন কুয়াশা উপেক্ষা করেই বোরো ধান রোপণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার কৃষকরা। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে জমিতে চলছে বোরো ধানের চারা রোপণের কাজ। প্রচণ্ড শীতে বীজতলা তৈরি করা থেকে শুরু করে চারা রোপণ করা পর্যন্ত ব্যস্ততার মধ্যে সময় কাটে কৃষকদের। তাদের নানান সমস্যা থাকার পরেও ধানের চারা রোপণের জন্য কোমর বেঁধে মাঠে নেমে পড়েছেন কৃষকেরা। এখন গভীর নলকূপের মাধ্যমে সেচ দিয়ে ধানের চারা রোপণের কাজ চলছে। কোনো জমিতে চলছে চাষ, বীজতলা থেকে তোলা হচ্ছে বীজ, চলছে রোপণ, সব মিলিয়ে জমিতে জোরেশোরে চলছে বোরো রোপনের আবাদ। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি বোরো মৌসুমে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে ২০ হাজার ১শ ৫০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর বিপরীতে ১হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে বীজতলার প্রয়োজন। ইতোমধ্যে ১হাজার ৭০ হেক্টর জমিতে বীজতলা করা হয়েছে। কৃষকরা নিজেদের চাহিদা পূরণ করে আশপাশের অঞ্চলে বোরো ধানের চারা পাঠাতে পারবেন। চলতি মাসেই পুরো উপজেলায় ধান রোপণ শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। বড়হিত ইউনিয়নের পাইকুজ গ্রামের আলাল উদ্দিন জানান, গত বছর তিনি চার বিঘা জমিতে বোরো ধানের আবাদ করেছিলেন। এবারও তিনি চার বিঘা জমিতে বোরো ধানের আবাদ করবেন জমি তৈরি হয়ে গেছে। দু’এক দিনের মধ্যে চারা রোপণ শেষ করবেন।
উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আলী আখছার খান জানান, বোরো জমি আবাদের লক্ষ্যে চাষীদের বিভিন্ন পরামর্শ দেওয়া হয়। এল এল পিতে রোপণ-লাইন, লোগো, পাচিং পদ্ধতিতে রোপণ ও শোষম সার ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হয়। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাধন কুমার গুহ মজুমদার জানান, বোরো ধান রোপণের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। আমাদের বীজতলা ভালো আছে ও যথেষ্ট বীজতলা রয়েছে। আশা করা যায়, আমাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *