ভূঞাপুরে ২০ ভাগ ছাত্র-ছাত্রী ঝরে পরার আশঙ্কা

সারাবাংলা

নাসির উদ্দিন, ভূঞাপুর থেকে
টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে বৈশি^ক মহামারী করোনার প্রভাবে ২০ ভাগ শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়ার আশংকা রয়েছে। উপজেলার ৬টি কলেজ, ১টি বিএম কলেজ, ৩০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ২১টি দাখিল মাদরাসা, ১১০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২৮টি কিন্ডার গার্টেন রয়েছে। এর মধ্যে মাধ্যমিকে করোনায় স্কুল বন্ধের আগে ছাত্র ছাত্রীর সংখ্যা ছিল ১৭ হাজার ৪৬ জন। প্রাথমিকে ৫ম শ্রেণির ছাত্র ছাত্রীর সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ২৪৮ জন কিন্ডার গার্টেনে ছাত্র ছাত্রীর সংখ্যা ছিল ৪ হাজার ৪৯৫ জন। কিন্তু করোনার কারণে দীর্ঘদিন স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় ২০ ভাগ ছাত্র ছাত্রী ঝড়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এর মধ্যে ৫ম শ্রেণির ৩ হাজার ২৪৮ জন ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে উপস্থিতি হয়েছে ২ হাজার ৬৫৬ জন। হিসেব অনুযায়ী ২০ ভাগ ছাত্র-ছাত্রী অনুপস্থিত রয়েছে। ঝড়ে পড়া ছাড়াও বাল্য বিয়ে, দোকান পাটে চাকরি, ভ্যান-রিক্সা চালনাসহ নানা কাজে জড়িয়ে পড়েছে ঝড়ে পড়া শিক্ষার্থীরা।

অপর দিকে দীর্ঘদিন বাড়ি ভাড়া দিতে না পেরে ও শিক্ষকদের বেকারত্বের ফলে নিবন্ধনকৃত ২৮টির মধ্যে ৩টি এবং নিবন্ধনবিহীন প্রায় ৭টি কিন্ডার গার্টেন বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা বিপাকে পড়েছেন। দ্রুত এসব সমস্যার সমাধান না করা হলে আরো শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়ার আশংকা রয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অনেকেই দীর্ঘদিনের ছুটিতে ফেসবুক ও মোবাইল গেমে এবং মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে।
এক প্রধান শিক্ষক জানান, খোঁজ নিয়ে জেনেছি করোনাকালীণ দীর্ঘ ছুটিতে নবম এবং দশম শ্রেণির অনেক ছাত্রীর বিয়ে হয়ে গেছে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শাহীনুর ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকায় আমাদের অজান্তে ২-৪ জন মেয়ের বিয়ে হতে পারে। এছাড়া অনুপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীদের সনাক্ত করে ক্লাসে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *