ভূঞাপুর হাসপাতালে চিকিৎসক সংকট

সারাবাংলা

নাসির উদ্দিন, ভূঞাপুর থেকে:
টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর হাসপাতালে চিকিৎসক স্বল্পতার কারণে চিকিৎসাসেবা ব্যহত হচ্ছে। ৫০ শয্যা বিশিষ্ট এই হাসপাতালে ২৩ জন চিকিৎসকের বিপরীতে ৮ চিকিৎসক দিয়েই চলছে চিকিৎসাসেবা। ফলে রোগীদের পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। ভূঞাপুর উপজেলার যমুনার চরাঞ্চলের হতদরিদ্র মানুষ, পার্শ্ববর্তী ঘাটাইল, কালিহাতী এবং গোপালপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে অধিকাংশ রোগী চিকিৎসাসেবা নিতে আসেন এই হাসপাতালে। ডাক্তার সংকটের কারণে অধিকাংশ সময়ই টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিকেল হাসপাতালে রোগীদের রেফার করা হচ্ছে। এতে রোগীরা হতাশা এবং ক্ষোভ প্রকাশ করছে। এছাড়া ৬ টি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ৬ জন ডাক্তারের মধ্যে ২ জন প্রেষণে থাকায় মেডিকেল এ্যাসিস্টেন্ট দিয়ে চালানো হচ্ছে ঐ উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের চিকিৎসা সেবা।
সরেজমিনে দেখা যায়, ২৩ জন ডাক্তারের মধ্যে ১৩ টি পদ শূণ্য এবং ২ জন প্রেষণে রয়েছে। ৮ জন ডাক্তার দিয়ে জরুরী চিকিৎসা সেবাসহ হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে ১ জন রয়েছেন দন্ত এবং ১ জন আয়ুর্বেদ। এদিকে, কয়েক বছর ধরে এক্স-রে মেশিনটি অকেজো অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সম্প্রতি নতুন একটি এক্স-রে মেশিন আনা হলেও এখনও তা অজ্ঞাত কারণে চালু করা হয়নি। অপারেশন থিয়েটার থাকলেও এ্যানেসথেটিস্ট এবং সার্জিক্যাল ডাক্তার না থাকায় কোনো ধরণের অপারেশন করা হচ্ছে না। নেই দন্ত চিকিৎসা সামগ্রী।
গাবসারা ইউনিয়নের যমুনার চরাঞ্চলের রুলীপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মাহমুদুল হাসান বলেন, আমরা গরীব মানুষ। আমার বৃদ্ধ মারে নিয়া আইছি ডাক্তার দেখাইতে। কিন্তু ডাক্তার আমার মারে টাঙ্গাইল হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দিছে। আমার হাতে টাকা নাই, তাঁর ওপর লকডাউন। তাই কোনো উপায় না দেইখা ফার্মেসী থেকে কিছু ওষুধ নিয়া বাড়ি যাইতাছি।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মেডিকেল অফিসার বলেন, জরুরী বিভাগে সারারাত ডিউটি করে আবার সকালেই চিকিৎসা সেবা (রাউন্ড) দিতে এসেছি। আমাদের কষ্ট হচ্ছে তারপরও ডাক্তার স্বল্পতার কারণে চিকিৎসা সেবা দিতে হয়। শূণ্য পদগুলো পূরণ করা হলে আমাদের এই কষ্ট আর থাকবে না। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মহী উদ্দিন আহমেদ বলেন, ডাক্তার শূণ্যতা ও অন্যান্য সরঞ্জামাদির বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। আশা করছি দ্রুতই সমস্যার সমাধান হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *