ভোটের মাঠ সরগরম তৃণমূল আওয়ামী লীগে ২ প্রার্থী চূড়ান্ত

সারাবাংলা

মনিরুজ্জামান হিরোন, বাউফল থেকে
দ্বিতীয় ধাপে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার সূর্যমণি ও নওমালা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১১ নভেম্বর। নির্বাচনকে সামনে রেখে জমে হয়ে উঠেছে ভোটের মাঠ। ক্ষমতাশীন দল আওয়ামী লীগ দলীয় প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া রাজনীতির মাঠও বেশ সরগরম। দলীয় মনোনয়ন পেতে লবিং তদবির। ইতোমধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগ তৃণমূল নেতাকর্মীদের উন্মুক্ত মতামতের ভিত্তিতে দুই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত করেছেন। তারা হলেনÑ সূর্যমণি ইউনিয়ন থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার হোসেন বাচ্চু, নওমালা ইউনিয়ন থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাড. কামাল হোসেন বিশ্বাস।
দলীয় সূত্র জানায়, প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করেন। সভায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা জনপ্রিয়তা ও ত্যাগী নেতাদের চেয়ারম্যান পদে মত দেন। তাদের উন্মুক্ত মতামতের ভিত্তিতেই প্রার্থী নির্বাচন করা হয়। সূর্যমনি ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বাচ্চু জনপ্রিয়তা শীর্ষে অবস্থান করছেন। পরপর দুই বার তিনি বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এবারও তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন বলে দাবি দলীয় নেতা-কর্মীদের। নওমালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নওমালা ইউনিয়নে অ্যাডভোকেট কামাল হোসেন বিশ্বাসের বাবা আ. খালেক বিশ্বাস আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতাকাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত নওমালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। কামাল বিশ্বাস জন্মসূত্রে আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। গত ২০১১ সালের নির্বাচনে কামাল বিশ্বাস ২৫শ ভোট ব্যবধানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তবে ২০১৬ সালের নির্বাচনে নৌকা প্রতিক নিয়েও দলীয় কোন্দলের কারনে নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী মো. শাহজাদা হাওলাদারের কাছে পরাজিত হন। দলীয় নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, গত ২০১৬ সালের নির্বাচনে বাউফল পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জুয়েল, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমানসহ একদল নেতা-কর্মীদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ নৌকার বিরোধীতা করায় কামাল বিশ্বাস পরাজিত হন। নির্বাচন প্রসঙ্গে অ্যাডভোকেট কামাল হোসেন বিশ্বাস বলেন, গত ২ অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতারা নওমালা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রতিনিধি সভা করেন। সভায় নওমালা ইউনিয়ন থেকে তৃনমূল আওয়ামী লীগ আমার নাম প্রস্তাব করেন। আর কোনো প্রাথী না থাকায় উপজেলা আওয়ামী লীগ আমার নাম প্রস্তাব করে পাঠায়। দলের মনোনয়ন পেলে এবার আমি শতভাগ নিশ্চিত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবো। এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ ভাইস-চেয়ারম্যান মোসারেফ হোসেন খান বলেন, বিশেষ বর্ধিত সভা করে তৃণমূল নেতাকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে সূর্যমণিতে আনোয়ার হোসেন বাচ্চু ও নওমালাতে কামাল বিশ্বাস দলের একক প্রার্থী হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *