মধ্যম ও নিম্ন আয়ের মানুষ ভয়ানক দুর্ভোগে পড়বে: ফখরুল

জাতীয় রাজনীতি

ডেস্ক রিপোর্ট: ডিজেল, কেরোসিন ও এলপি গ্যাসের দাম বৃদ্ধি অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার (৫অক্টোবর)গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিবৃতিতে এ মন্তব্য করেন তিনি। তিনি বলেন, হঠাৎ করে এই দাম বৃদ্ধির ফলে মধ্যম ও নিু আয়ের মানুষ ভয়ানক দুর্ভোগের মধ্যে পড়বে।

বর্তমান স্বৈরাচারী সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকে জনস্বার্থকে তাচ্ছিল্য করে অত্যাবশ্যকীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিসহ দফায় দফায় বিদ্যুৎ, গ্যাস ও জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করে আসছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, গত পরশুদিন রাতে দেশে কেরোসিন ও ডিজেলের দাম শতকরা ২৩ ভাগ বৃদ্ধি করে ৬৫ টাকা থেকে ৮০ টাকা পুনর্র্নিধারণ করা হয়েছে।

এর একদিন যেতে না যেতেই বৃহস্পতিবার এলপি গ্যাসের দাম ৪.২৯ শতাংশ বৃদ্ধি করে ১২ কেজির মূল্য ১২৫৯ টাকা থেকে ১৩১৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এলপি গ্যাসের মূল্য গত ৪ মাসে ৪৭.৩৬ শতাংশ বাড়ানো হলো। গত জুলাই মাসে এর মূল্য ছিল ৮৯১ টাকা।

তিনি বলেন, এই মূল্য বৃদ্ধি দেশের অর্থনীতিতে ‘চেইন রিঅ্যাকশন’ সৃষ্টি করবে। ডিজেল, কেরোসিন ও এলপি গ্যাসের মূল্য বাড়ায় জনজীবনে মূল্যস্ফীতির চাপ বৃদ্ধির পাশাপাশি সেচ পরিবহনসহ সামগ্রিক ব্যয় অসহনীয়ভাবে বেড়ে যাবে। জনজীবনে দুর্গতির শেষ থাকবে না। জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধির পাশাপাশি অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে এবং মধ্যম ও নিু আয়ের মানুষ ভয়ানক দুর্ভোগের মধ্যে পড়বে।

মির্জা ফখরুল বলেন, যেখানে ভারতে জ্বালানি তেলের দাম কমানো হয়েছে অথচ বাংলাদেশে এর দাম দ্বিগুণ করা হয়েছে, যাতে ক্ষমতাসীনরা জনগণের টাকা লুটপাট করে আগের মতোই বিদেশে পাচার করতে পারে।

তিনি বলেন, ভোটারবিহীন সরকারের জনগণের কাছে জবাবদিহি করতে হয় না বলেই জনমতকে উপেক্ষা করে ডিজেল, কেরোসিন ও এলপি গ্যাসের মূল্য অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি করা হয়েছে।

এমনিতেই বর্তমানে চাল, ডাল, আটা, চিনি, ভোজ্য তেল ও রান্নার গ্যাসের দাম দ্বিগুণ বৃদ্ধিতে স্বল্প আয়ের মানুষ সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে। জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধিতে কৃষি ও শিল্পে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে এবং নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম লাগামহীনভাবে বাড়বে।

বিএনপি মহাসচিব কেরোসিন, ডিজেল, জ্বালানি তেল ও এলপি গ্যাসের দাম অস্বাভাবিক হারে মূল্য বৃদ্ধির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে এগুলোর দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।

 

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *