মহাকাশে যাবে কাঠের তৈরি স্যাটেলাইট!

তথ্য প্রযুক্তি

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক : তথ্য প্রযুক্তিতে এগিয়ে থাকা জাপান এবার মহাকাশে কাঠের তৈরি স্যাটেলাইট বা উপগ্রহ পাঠানোর পরিকল্পনা করছে। জাপানি সংস্থা সুমিটোমা ফরেস্ট্রি এবং কিয়েটো ইউনিভার্সিটি কাঠ দিয়ে উপগ্রহ তৈরির এই উদ্যোগ নিয়েছে। কাঠের তৈরি বিশ্বের প্রথম উপগ্রহ নির্মাণ করা হবে ২০২৩ সালের মধ্যে।

সুমিটোমো ফরেস্ট্রি জানিয়েছে, মহাকাশে কাঠের উপকরণের ব্যবহার নিয়ে তারা ইতিমধ্যে গবেষণা শুরু করেছে। বিভিন্ন ধরনের কাঠ নিয়ে গবেষণা করা হচ্ছে। মহাকাশে আবর্জনা কমাতে কাঠের তৈরি উপগ্রহ নির্মাণের এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কাঠের উপগ্রহগুলো বায়ুমণ্ডলে কোনো ধরনের ক্ষতিকারণ পদার্থ না ছড়িয়েই পুড়ে যেতে পারবে।

কিয়েটো ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এবং জাপানি নভোচারী তাকাও দোই বলেন, ‘এটা খুব উদ্বিগ্নের ঘটনা যে, পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে পুনরায় প্রবেশ করা সকল উপগ্রহ জ্বলতে থাকে এবং ক্ষুদ্র অ্যালুমিনা কণা তৈরি করে যা বহু বছর ধরে বায়ুমণ্ডলের ওপরে ভেসে থাকতে পারে। এগুলো একসময় পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলেও প্রবেশ করতে পারে। আমরা এজন্য কাঠ দিয়ে পরিবেশবান্ধব উপগ্রহ তৈরি করছি। প্রথমে এর ইঞ্জিনিয়ারিং মডেল এবং পরবর্তীতে ফ্লাইটের মডেলটি তৈরি করা হবে।’

সুমিটোমো ফরেস্ট্রির একজন মুখপাত্র বিবিসিকে বলেছেন, কী ধরনের কাঠ ব্যবহার করা হবে তা একটি ‘আরঅ্যান্ডডি সিক্রেট’ বিষয়।

মহাকাশে বিভিন্ন দেশ নিয়মিত উপগ্রহ পাঠিয়ে যাওয়ার কারণে স্পেস জাঙ্ক বা মহাকাশ আবর্জনা ক্রমবর্ধমান সমস্যা হয়ে উঠেছে। কমিউনিকেশন, টেলিভিশন, নেভিগেশন, ওয়েদার ফোরকাস্টিং এর কাজে পৃথিবীর কক্ষপথে সক্রিয় উপগ্রহ যেমন রয়েছে, তেমনি রয়েছে পরিত্যক্ত উপগ্রহও। এছাড়াও মহাকাশে রয়েছে বিভিন্ন রকেটের নানা অংশ এবং অন্যান্য আবর্জনা যা অসংখ্য মহাকাশ অভিযানের ফলে সৃষ্টি হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *