মহামারী পরিস্থিতির উন্নতি হলেই বিশ্ব ইজতেমা

জাতীয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি কিংবা মার্চে বিশ্ব ইজতেমা করার জন্য তাবলিগ জামাতের দুই গ্রুপের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে তাদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে সরকার।

বিশ্ব ইজতেমার বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে ইজতেমা করার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেই। জানুয়ারি পর্যন্ত দেখব, পরিস্থিতি কী হয়। এর পর চিন্তা করব। অবস্থার উন্নতি হলে তখন হয়তো সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবো।’

তিনি বলেন, ‘এত বড় একটা কাজ। বিভিন্ন দেশ থেকে লোকজন আসে। যদিও দুটি গ্রুপ আছে, গ্রুপ থাকলেও আমরা ভাগ করে দিয়েছি। চলতি বছর দুই ভাগে করেছি। প্রয়োজনে এবারও আমরা দুভাবে করব।’

বিশ্ব ইজতেমার বিষয়ে বিবদমান তাবলিগ জামাতের লোকজনের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে, জানিয়ে ফরিদুল হক খান বলেন, ‘আমরা চাই, বিশ্ব ইজতেমা হোক। আল্লাহ যদি পরিস্থিতি ভালো রাখেন, আমরা ইজতেমা করব, ইনশাআল্লাহ।’

তাবলিগের লোকজন বলেছেন, ফেব্রুয়ারির শেষে কিংবা মার্চের শুরুতে তারা ইজতেমা করতে চান—এ বিষয়ে ফরিদুল হক বলেন, ‘হতে পারে হয়তো, অবস্থা যদি ভালো থাকে। তবে কোভিড পরিস্থিতির অবনতি হলে কোনো অবস্থাতেই তা হবে না।’

করোনা মহামারির কারণে এবার নির্ধারিত তারিখে টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে তাবলিগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমা হচ্ছে না।

তাবলিগ জামাতের নেতারা জানিয়েছেন, ইজতেমার বিষয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা চলছে। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি সাপেক্ষে, অন্যান্য দেশ থেকে যাতে লোকজন আসতে পারে, সেই পরিস্থিতি তৈরি হলে বিশ্ব ইজতেমা হবে। এ বিষয়ে সরকারকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। সরকার যেটা ভালো মনে করবে, সেটা করবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *