মানিকগঞ্জে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন : পঁচা মাছের দুর্গন্ধে ভোগান্তিতে মানুষ

সারাবাংলা

সাইফুল ইসলাম, মানিকগঞ্জ থেকে : সরকারি নিষেধাজ্ঞা অনুযায়ী ১৬ অক্টোবর থেকে আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে মা ইলিশ শিকার বন্ধ থাকায় জেলেদের জীবন জীবিকা স্বাভাবিক রাখতে সরকার নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে। এমতাবস্থায় মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার লেছড়াগঞ্জ ইউনিয়নের বালিয়াচক গ্রামে পদ্মার শাখা নদীর একটি অংশে অবস্থিত একটি কুলে বিষ প্রয়োগ করে বিভিন্ন প্রকারের দেশীয় মাছ নিধন করেছে দুর্বৃত্তরা।
জানা যায়, গত বুধবার রাত ১০টায় পদ্মার শাখা নদীতে বিষ প্রয়োগ করে ওই কুলের সব মাছ মেরে ফেলা হয়েছে। পচা মাছের দুর্গন্ধে কুলের জল দূষিত হয়ে পরিবেশ নষ্ট হওয়ায় ওই এলাকার মানুষ পড়েছে ভোগান্তিতে। এলাকাবাসী জানায়, গ্রামবাসী সারাবছর পদ্মার ওই শাখা নদীর জল নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহার, মানুষের গোসল, গরু-ছাগলের গোসল, স্থানীয় জেলেরা মাছ শিকার করে জীবন-জীবিকা নির্বাহ ও কৃষকরা ফসলি জমিতে জল সেচ করে ফসল ফলায়। গত রোববার এলাকাবাসীর পক্ষে বালিয়াচক গ্রামের মৃত আমির উদ্দিনের ছেলে মো. বিল্লাল হোসেন উপজেলার নটাখোলা গ্রামের শেখ আব্দুল হাইয়ের ছেলে শেখ সেলিম, শেখ রব, শেখ নিজাম এবং শেখ রহমানের ছেলে শেখ লিটনকে বিবাদী করে হরিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মৎস্য কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।
মো. বিল্লাল হোসেন জানান, এই পরিবার উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এলাকার সাধারণ মানুষের ক্ষতি করার উদ্দেশ্যে বিষ প্রয়োগ করে কুলের সব মাছ মেরে ফেলেছে। বিষ প্রয়োগ করার ফলে মাছ পচে গিয়ে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পরিবেশ নষ্ট হওয়ায় এলাকাবাসী ভোগান্তিতে।
এ বিষয়ে লেছড়াগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ হোসেন ইমাম (সোনা মিয়া) বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। এলাকার মানুষ সারা বছর এই পানি নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহার করে ও স্থানীয় জেলেরা মাছ শিকার করে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে। যারা এই অপকর্ম করেছে তাদের বিচার হওয়া দরকার। এ প্রসঙ্গে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. সাইফুর রহমান জানান, বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধন একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *