মাহমুদউল্লাহর জবাবের কঠোর সমালোচনা করলেন বিসিবি সভাপতি

খেলাধুলা

খেলাধুলা ডেস্ক: প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের কাছে হারের পর তিন সিনিয়রের ব্যাটিংকে দায়ী করেছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এর জবাবে দুই দিন আগে মাহমুদউল্লাহ পাপনের সমালোচনা করে বলেন ‘আমরাও মানুষ’। এবার তার পাল্টা জবাব দিলেন নাজমুল হাসান পাপন।

স্কটল্যান্ডের কাছে হারের পর পাপন সাকিব-মুশফিক আর রিয়াদকে খোঁচা মেরে বলেছিলেন, কাউকে তিনে খেলাতেই হবে, কাউকে চারে খেলাতেই হবে- এটা তো ম্যাচের কন্ডিশনের ওপর নির্ভর করে। তাই এটিও আরেকটি কারণ। ওরা কী ভেবেছিল জানি না। ওদের মাথায় কী চলছিল জানি না। তবে আমার বিশ্বাস, আমাদের ক্রিকেটাররা আরও বড় দলের বিপক্ষে ভালো খেলতে পারে।

এরপর পাপুয়া নিউগিনিকে হারিয়ে বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত হওয়ার পর সংবাদ সম্মেলনে এসে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বলেন, অনেক প্রশ্ন এসেছে আমাদের ব্যাটিংয়ের স্ট্রাইক রেট প্রসঙ্গে। আমাদের তিন সিনিয়র ক্রিকেটারের স্ট্রাইক রেট নিয়ে। আমরা তো চেষ্টা করেছি। চেষ্টার বাইরে তো আমাদের কাছে কিছু নেই। এরকম না যে আমরা চেষ্টা করিনি। আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। কিন্তু ফল আমাদের পক্ষে আনতে পারিনি। আমরাও মানুষ। আমাদেরও অনুভূতি কাজ করে।

এবার অধিনায়কের কথার পাল্টা জবাব দিলেন বিসিবি সভাপতি। এক বেসরকারি টেলিভিশনের সঙ্গে সাক্ষাতকারে মাহমুদউল্লাহর উদ্দেশ্যে পাপন বলেন, আমার মনে হয় তার ও দলের বাকিদের একটা ব্যাপার বোঝা উচিত। যেটা সে বলল, তারা মানুষ কিন্তু একই সঙ্গে দলের সমর্থকদের সবাইও মানুষ আর বিসিবিতে যারা আছে তারাও। এখানে ব্যক্তিগতভাবে নেওয়ার কিছু নেই। কারণ আমরা যাই বলি না কেন দল ও দেশের জন্য বলেছি। কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে না।

মাহমুদউল্লাহর বক্তব্যকে আবেগী হিসেবে উল্লেখ করে নাজমুল হাসান বলেন, দুইটা জিনিস আমি বুঝতে পারছি না। যেটা ও বলল, তাদের কমিটমেন্ট নিয়ে প্রশ্ন তোলায় খারাপ লেগেছে। আমার মনে হয় না কেউ তাদের কমিটমেন্ট নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে…আমি একবারের জন্যও তাদের কমিটমেন্ট নিয়ে প্রশ্ন তুলিনি। দ্বিতীয় ব্যাপার হচ্ছে সে বলেছে  আমি তাদের অপমান করেছি। আমার মনে হয় এটা শুধু আবেগী কথা।

ভবিষ্যতে কী টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা আছে? বিসিবি সভাপতি সেই পরিবর্তনেরও কিছুটা ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন। বাংলাদেশ বর্তমানে তিন ফরম্যাটে ভিন্ন তিন অধিনায়কের নেতৃত্বে খেলছে। বিশ্বকাপের মত বৈশ্বিক এক টুর্নামেন্টে মাহমুদউল্লাহর বিব্রতকর বক্তব্যের কারণে এই ফরম্যাটে অধিনায়কত্ব পরিবর্তন হতে পারে, এটাই এখন যেন অবধারিত বিষয়। যদিও পাপন নির্দিষ্ট করে কিছু বলেননি।

বিসিবি সভাপতি বলেন, এই মুহূর্তে নেতৃত্ব (টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে) আমাদের কোনো চিন্তা নেই। তবে এটা স্বাভাবিক, যে কোনো সময় নেতৃত্বে পরিবর্তন আসতে পারে। এবং এখানেও সম্ভাবনা আছে যে, নেতৃত্বে পরিবর্তন আসবেই। তবে কোন ফরম্যাটে পরিবর্তন আসছে সেটা আমি এখন আমি প্রকাশ করবো না।

প্রসঙ্গত, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে বিসিবি সভাপতির একটা দ্বন্দ্ব বেশ কিছুদিন আগে থেকেই চলে আসছিল। যে কারণে দেখা গেছে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট চলাকালেই হঠাৎ করেই অবসরের ঘোষণা দিয়ে বসেন রিয়াদ। যদিও সেই ঘোষণাটা এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে দেননি তিনি।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *