মির্জাগঞ্জে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত সাপ্তাহিক বাজারে

সারাবাংলা

রনি খান, মির্জাগঞ্জ থেকে:
পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে রাস্তাগুলো ফাঁকা সুনসান। সড়ক দেখে বোঝার কোনো উপায় নেই, নিত্যপণ্য কেনাকাটা করতে বাজারের ভেতর মানুষের ভিড়। সেখানে নেই কোনো সামাজিক দূরত্ব। ঠাসাঠাসি অবস্থা। অধিকাংশ মানুষের মুখেও নেই মাস্ক।  রোববার সকাল ১০টায় উপজেলা সদরের সুবিদখলী বাজারে গিয়ে এই চিত্র দেখা গেছে। মাছ-কাঁচা বাজারে কথা হলো ক্রেতাদের সঙ্গে। মুখে মাস্ক নেই কেন, জানতে চাইলে তারা বলেন, ‘পকেটে আছে। দোকানদারেররা কথা বুঝতে পারে না বলে মুখে দেইনি।’
একজন সবজি বিক্রেতা বললেন, ‘বাজারের দোকানগুলোই তো লাগালাগি, সেখানে দুই থেকে তিনজন দাঁড়ালেই একজনের সঙ্গে আরেক জনের গা লেগে যায়। এখানে আমাদেরই বা কী করার আছে? উপজেলার বিভিন্ন প্রবেশপথসহ পাড়া-মহল্লার মোড়ে মোড়ে পুলিশের তল্লাশি অব্যাহত রয়েছে। আজ সকাল থেকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় যানবাহন চলাচল পূর্বের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে। গাড়ি নিয়ে বিভিন্ন স্থানে টহল দিচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।
রিকশাচালক মনির হোসেন বলেন, আইজকের দিনের বাজারের খরচটা উঠলে বাড়ি চলে যাব। রিকশা না চালাইলে খামু কী? মির্জাগঞ্জ থানার ওসি মো. মহিববুল্লাহ বলেন, কঠোর অবস্থানে রয়েছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। নাগকিদের ও সচেতন হতে হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাম্মৎ তানিয়া ফেরদৌস বলেন. এবাবে চলতে থাকলে বাজার কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে সাপ্তাহিক হাট বন্ধ করে দেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *