মুন্সীগঞ্জে মা ইলিশ সংরক্ষণে সভা

সারাবাংলা

রনি শেখ, মুন্সীগঞ্জ থেকে
মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীতে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান উপলক্ষ্যে জনসচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল ৮টায় মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলার দীঘিরপাড় মৎস্য আড়তে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আগামী ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত মোট ২২ দিন মা ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম উপলক্ষে সরকার মা ইলিশ সংরক্ষণে আহরণ, মজুত, বাজারজাত, পরিবহন, বিনিময়সহ নানা নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও টঙ্গীবাড়ি উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদফতরের আয়োজনে মা ইলিশ রক্ষার্থে জনসচেতনতামূলক এ আলোচনা সভা করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সদ্য যোগদানকৃত টঙ্গীবাড়ি উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা নিগার সুলতানা।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা নিগার সুলতানা তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আগামী ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ইলিশের প্রধান প্রজনন সময়। এসময় মা ইলিশ আহরণ, বাজারজাতকরণ, মজুত, পরিবহনসহ ক্রয়-বিক্রয় এবং বিনিময়ের উপর সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার।সরকারি এ আইন অমান্যকারী ব্যক্তির শাস্তি কমপক্ষে ১ থেকে ২ বছর সশ্রম কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে।
এছাড়া দীঘিরপাড় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. আজিজুর রহমান তিনি তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মা ইলিশ সংরক্ষণের উপর কঠোর হুশিয়ারী দিয়ে বলেন, দীঘিরপাড় বাজার মৎস্য আড়তে একটি ইলিশও কাউকে বিক্রি করতে দেওয়া হবে না। সরকার ঘোষিত এই ২২ দিন কেউ যদি মা ইলিশ বেচাকেনা, আহরণ, মজুত, পরিবহন এবং বিনিময় করেন, তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন টঙ্গীবাড়ি উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন মৃধা ও মৎস্য কর্মকর্তারা, দীঘিরপাড় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই কামরুল ইসলাম ও অন্যন্যা সদস্যরা, দীঘিরপাড় মৎস্য আড়ৎদার, ব্যবসায়ী, বাজার কমিটির প্রতিনিধি, বরফকল মালিক, মা ইলিশ বহনকারী নৌকার মালিক, মা ইলিশ আহরণকারী জেলে, স্থানীয় জনসাধারণসহ মিডিয়া কর্মীবৃন্দ।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *